কোরিয়ায় ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া কঠিন হচ্ছে

korea_driving-licence

গাড়ির ইঞ্জিন চালু করে মাত্র ৫০ মিটার চালিয়ে নিয়ে গেলেই মিলছে ড্রাইভিং লাইসেন্স। দ. কোরিয়ার রাস্তায় গাড়ি চালানোর অনুমতি পেতে এই ‘সহজ’ পরীক্ষায় অনেক অযোগ্য-অদক্ষ চালকরাও উৎরে যাচ্ছেন এমনটাই মনে করছেন দেশটির বিশেষজ্ঞরা। এছাড়া চীনে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া তুলনামূলক কঠিন হওয়ায় এবং কোরিয়ান লাইসেন্স চীনের অধিকাংশ প্রদেশে অনুমোদিত হওয়ায় বিপুল পরিমাণে চিনা নাগরিক কোরিয়া থেকে গাড়ি চালানোর সনদ নিয়ে যাচ্ছেন। এমন সব প্রেক্ষিতে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবার পরীক্ষা বর্তমানের চেয়ে আরও কঠিন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোরিয়া সরকার।

নতুন নীতিমালার আওতায় গাড়ি চালনা বিষয়ক বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণের সময়সীমা ২ থেকে বাড়িয়ে ৪ ঘণ্টা করা হবে এবং প্রার্থীদেরকে ৫০ মিটারের স্থলে ৩০০ মিটার গাড়ি চালিয়ে দেখাতে হবে। লিখিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে প্রশ্নের সংখ্যা ৭৩০ থেকে বৃদ্ধি করে ১০০০ করা হবে। এছাড়া সড়কে গাড়ি চালানোর বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণ ন্যূনতম ছয় ঘণ্ট করা হবে।

চলতি বছরের শেষ নাগাদ সংশোধিত এই নীতিমালা কার্যকর করার পরিকল্পনা রয়েছে কোরিয়া পুলিশের। এর ফলে ড্রাইভিং শেখার খরচও ৪ লাখ উওন থেকে বেড়ে ৪ লাখ ৭০-৮০ হাজার উওন পর্যন্ত হতে পারে।

পুলিশের একজন মুখপাত্র বলছিলেন যে ২০১১ সালে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবার পরীক্ষা সহজ করে দেয়ার পর এতে উত্তীর্ণের হার ৬৯.৬ শতাংশ থেকে বেড়ে ৯২.৮ শতাংশে এসে দাঁড়িয়েছে। এর ফলে চালকদের যোগ্যতার সঠিক মূল্যায়ন হচ্ছে না বলেই মনে করছেন তিনি, “একজন চালকের রাস্তায় নিরাপদে গাড়ি চালানোর জন্য যা যা দক্ষতা প্রয়োজন সংশোধিত পদ্ধতিতে আমরা সেগুলোর সবই পরীক্ষা করে দেখবো।”