কুয়ালালামপুরে শতাধিক বাংলাদেশি আটক

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে অভিবাসন পুলিশের অভিযানে কমপক্ষে ১০০ বাংলাদেশিসহ প্রায় তিন শতাধিক অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কুয়ালালামপুরের বুকিত বিন্তাংয়ের সবচেয়ে বড় ইলেকট্রনিক মার্কেট ল-ইয়ট প্লাজা, সুঙ্গাই ওয়াং, টাইমস স্কয়ারে এ অভিযান চালানো হয়।

জানা যায়, প্রায় অনেকদিন ধরেই মালয়েশিয়া জুড়ে চলছে অবৈধ অভিবাসীদের আটক অভিযান। শুক্রবার অভিবাসন পুলিশ রাজধানী কুয়ালালামপুরেই চালায় বড় ধরনের এ অভিযান।

এ অভিযানে বাংলাদেশ, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের ৩ শতাধিক নাগরিককে আটক করা হয়। আটক অভিবাসীদের মধ্যে অনেক নারী রয়েছে।

অভিযান শুরুর কিছু সময় আগে ল-ইয়ট প্লাজা থেকে বের হয়ে আসা চাঁদপুরের ইরতিজা সানমান অমি গণমাধ্যমকে জানান, বিদেশি পর্যটকদের ইলেক্ট্রনিক সামগ্রি কেনাকাটার সবচেয়ে পছন্দের মার্কেট ল-ইয়ট প্লাজাতে অভিযান হতে পারে এ ছিল কল্পনাতীত। প্রবাস জীবনে এমন ভয়াবহ অভিযান আর কখনো দেখিনি বলেও জানান তিনি।

ল-ইয়ট প্লাজায় কর্মরত আল আমিন গণমাধ্যমকে জানান, প্রথমে পুলিশ এসে ল-ইয়ট প্লাজার গেট বন্ধ করে দেয়। পরে ১ম তলা থেকে ৪ তলা পর্যন্ত অভিযান চালায়। এ সময় কেনাকাটা করতে আসা বিদেশিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশের সাতটি ক্যারিয়ার ভ্যানে আটক অভিবাসীদের পরিপূর্ণ করে নিয়ে যাওয়া হয় বলেও জানান তিনি।

অভিযানের বিষয়ে ল-ইয়ট প্লাজায় কর্মরত কুমিল্লার মোহাম্মদ মনির হোসেন  গণমাধ্যমকে জানান, আমি তিন বছর ধরে ল-ইয়ট প্লাজা কাজ করি। ল-ইয়ট প্লাজা হলো এশিয়ার সেরা ইলেক্ট্রনিক মার্কেট। এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক আসে ইলেক্ট্রনিক সামগ্রিক কেনাকাটা করতে। এই বারের অভিযান ছিল খুবই ভয়াবহ।

প্রথমে পুলিশ এসে ল-ইয়ট প্লাজার সব গেট বন্ধ করে দেয়। এরপর ১ম তলা থেকে ৪ তলা পর্যন্ত অভিযান চালায়। তখন বিদেশিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

মালয়েশিয়া প্রবাসী সাংবাদিক গৌতম রায় জানান, এ পর্যন্ত খবর পেলাম সাতটি গাড়ি পরিপূর্ণ করা হয়েছে। আনুমানিক তিনশর বেশি বিদেশি আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক বাংলাদেশি রয়েছে। -সংবাদমাধ্যম