সিরিয়া ইস্যুতে ফ্রান্স-রাশিয়া উত্তেজনা

সিরিয়া ইস্যুতে ফ্রান্স-রাশিয়া উত্তেজনা

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ তোলায় প্রেসিডেন্ট পুতিন নির্ধারিত ফ্রান্স সফর বাতিল করেছেন। মঙ্গলবার ফরাসি প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

এর আগে সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে গোলাবর্ষণের কারণে রাশিয়াকে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত করে ফ্রান্স। প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ বলেন, সিরিয়ায় হামলার দায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) রাশিয়ার বিচার হওয়া উচিত।

আগামী সপ্তাহে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ফ্রান্স সফরে আসার কথা ছিল। ফ্রান্সে একটি অর্থোডক্স গির্জা উদ্বোধন করতেন তিনি। সফরে প্রেসিডেন্ট ওলাঁদের সঙ্গে সাক্ষাতের কথাও ছিল।

গত সপ্তাহে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে বোমাবর্ষণ বন্ধে ফ্রান্স ও স্পেনের উত্থাপিত একটি প্রস্তাব রাশিয়ার ভেটোতে নাকচ হয়ে যায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট রাশিয়াকে আক্রমণ করে কথা বলেন।

তবে রাশিয়া জোর দিয়ে বলেছে, তাদের লক্ষ্য সিরিয়ার সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো। তারা বেসামরিক মানুষের উপর হামলা চালায় না।

কিন্তু ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ রাশিয়ার অবস্থান প্রত্যাখ্যান করে বলেন, আজকে যারা যুদ্ধাপরাধের শিকার তারা একদিন প্রতিশোধ নেবে। ফ্রান্স সফরে আমি পুতিনের সঙ্গে দেখা করলে বলব, সিরিয়ায় রাশিয়ার কর্মকাণ্ড বিশ্বের কাছে তাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, রাশিয়া ও সিরিয় সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে সিরিয়ার হাসপাতালে হামলা চালিয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাশিয়া ও সিরিয়া আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) সদস্য নয়।