জুমার নামাজের ইমামতিতে মাহমুদউল্লাহ

mahmud

নিউজিল্যান্ডে জুমার নামাজের ইমামতি করলেন বাংলাদেশের তারকা ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ।

স্থানীয় মসজিদের ইমাম ছিলেন অনুপস্থিত। এ সময় মসজিদ কমিটির সেক্রেটারি বললেন, “আপনাদের মধ্য থেকে কি কেউ ইমামতি করতে পারবেন?”

এ কথা শুনে মাহমুদউল্লাহ বললেন, “জুমার নামাজ পরিচালনার নিয়মকানুন জানা আছে আমার। তবে খুতবা কোথায় পাবো?”

তখন সমস্যার সমাধানে এগিয়ে এলেন তামিম ইকবাল। মাহমুদউল্লাহ এবং তামিম ইকবাল মিলে বসে গেলেন গুগলে খোঁজাখুঁজি করতে। মোবাইলে বসেই গুগল খুঁজে তারা দুজন বের করে ফেললেন জুমার নামাজের দুই খুতবা এবং সেটা ডাউনলোডও করে ফেললেন।

এরপর মোবাইল হাতেই মেহরাবে দাঁড়িয়ে গেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মোবাইলে রেখেই আরবিতে দুই খুতবা পাঠ করলেন তিনি। সবশেষে নেলসনের স্থানীয় সময় দুপুর দেড়টায় জুমার নামাজের ইমামতি করলেন মাহমুদউল্লাহ। দারুণ দক্ষতায় খুতবাসহ পুরো জুমার নামাজ আদায় হলো বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডারের ইমামতিতে।

বাংলাদেশ দলের টিম হোটেল ট্রেইলওয়েজের খুব কাছেই অবস্থিত মসজিদটি। স্থানীয় মুসলিমদের জন্য নির্মিত মসজিদটিতে অবশ্য খুব বেশি মুসল্লি ছিলেন না। বাংলাদেশ দলের ১৫ থেকে ১৬ জন ক্রিকেটার, সাংবাদিকদের মধ্যে সিরিজ কাভার করতে বাংলাদেশ থেকে নিউজিল্যান্ড যাওয়া আরিফুর রহমান বাবু এবং স্থানীয় প্রায় ১৮ থেকে ২০জন মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

ওই মসজিদে মহিলাদের জন্যও নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে। জুমার নামাজের সময়ও উপস্থিত ছিলেন বেশ কয়েকজন নারী মুসল্লি। মাশরাফি বললেন, “এই কেউ মোতাওয়াল্লির কাজটা করে দে।” পাশের রুমে মহিলারা আছে। তখন এক প্রবাসী বাঙালি মোতাওয়াল্লির দায়িত্ব পালন করেন।

টাইগারদের নামাজের ছবি ভাইরাল

এর আগে নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেটের টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম তার ফেসবুক পেইজে দলের খেলোয়াড়দের একসঙ্গে নামাজ আদায়ের একটি ছবি আপলোড করেছেন।

এতে দেখা যাচ্ছে, একটি মাঠের মধ্যে নামাজে ইমামতি করছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। পিছনে সারিবদ্ধ হয়ে নামাজের জামায়াতে অংশ নিয়েছেন- মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তাসকিন আহমেদ, সাকিব আল হাসানসহ বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অন্য মুসলিম খেলোয়াড়রা।

ছবির ক্যাপশনে ইংরেজিতে মুশফিকুর রহিম লিখেছেন, “Doesn’t matter where u r,namaj come first…please keep us in your prayers too…” অর্থাৎ- আপনি কোথায় আছেন সেটি কোনো বিষয় না। সবার আগে নামাজ। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

তার ওই স্ট্যাটাসটি ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে। অনেকেই ছবিতে কমেন্ট করে তাদের অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন।

তৌসিফ আনোয়ার নামে একজন মন্তব্য করে লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ- এখন আমি গর্বিত আজ আমার দেশের খেলোয়াড়দের নিয়ে, এতদিন পাকিস্তান আফগানিস্তান খেলোয়াড়দের নিয়ে প্রশংসা করতাম, এখন আমার দেশ নিয়ে আমি গর্বিত।

আশিকুল হায়দার মানিক নামে একজন ছবি শেয়ার করে তার ফেসবুকে লিখেছেন, আফগানিস্তান বা পাকিস্তান দলের এরকম দৃশ্য প্রায়ই চোখে পড়ে আমাদের, আজ বাংলাদেশ দলেরও দেখে ভাল লাগল। ইমামতি করছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

এভাবে ছবিটি ব্যাপক শেয়ার ও লাইক এবং কমেন্ট হয়েছে। যা ফেসবুকে এখন সবার হোম পেজজুড়ে শোভা পাচ্ছে।