বিশ্বসেরা শিক্ষকের সংক্ষিপ্ত তালিকায় বাংলাদেশের শাহানাজ পারভীন

best-teacherএ বছরের  বিশ্বসেরা শিক্ষক (বেস্ট গ্লোবাল টিচার) পুরস্কারের জন্য মনোনীতদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় উঠে এসেছেন একজন বাংলাদেশি শিক্ষক। বগুড়ার শেরপুর উপজেলা সদর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এ শিক্ষকের নাম শাহানাজ পারভীন।

ভারকি ফাউন্ডেশন নামে একটি সংস্থা পুরস্কারের প্রবর্তক। গত তিন বছর ধরে এ পুরস্কার প্রদান করে আসছে সংস্থাটি। সম্প্রতি ভারকি ফাউন্ডেশন ২০১৭ সালের জন্য সেরা শিক্ষকদের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করে। ৫০ জনের ওই সংক্ষিপ্ত তালিকায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিক্ষকদের সঙ্গে আছে বগুড়ার শাহানাজ পারভীনের নামও।
সংস্থাটির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শিক্ষকদের জন্য বিশ্বের সর্বোচ্চ পুরস্কারের তালিকায় মনোনীত করা হয়েছে তাকে। ২০১৭ সালের ভারকি ফাউন্ডেশন গ্লোবাল টিচার প্রাইজের ৫০ জনের তালিকায় তিনি রয়েছেন।
এরপর শাহানাজ তার টুইটার অ্যাকাউন্টেও এ খবর নিশ্চিত করেন। তিনি টুইটার বার্তায় লিখেছেন, ‘২০১৭ সালের গ্লোবাল টিচার পুরস্কারের জন্য বিশ্বের শীর্ষ ৫০ শিক্ষকের তালিকায় আমি মনোনীত হয়েছি। সবাইকে ধন্যবাদ। ’
বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ১ মিলিয়ন ডলার মূল্যমানের এই পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে তৃতীয় বছরের মতো। ৫০ জনের এ সংক্ষিপ্ত তালিকা দেখা যাবে সংস্থাটির গ্লোবাল টিচার প্রাইজের ওয়েবসাইটে (globalteacherprize.org)।
বাংলাদেশের প্রত্যন্ত গ্রামে প্রাথমিক স্কুলের দুই শিক্ষকের ঘরে জন্ম নেন শাহানাজ। যখন পরিবারকে আর্থিক সহায়তার কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে অনেক শিশু ঝরে পড়ছিল তখন সেই সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন পদক্ষেপ হাতে নেন তিনি। শিক্ষা পদ্ধতির ওপর প্রযুক্তি ও বিভিন্ন মাল্টিমিডিয়া অ্যাপ্লিকেশনের ওপর জোর দেন শাহানাজ। নতুন শিক্ষকদের জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কর্মশালা নিয়মিত আয়োজনের পাশাপাশি তিনি এ বিষয়ে গবেষণাও করেছেন। কেন শিক্ষার্থীরা প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণে ব্যর্থ হচ্ছে সেটি তার গবেষণার প্রধান বিষয় ছিল।
এর আগে ২০১০ সালে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার সেরা শিক্ষকের পুরস্কারেও ভূষিত হন শাহানাজ। এর তিন বছর পর দেশের সেরা শিক্ষকের মর্যাদাও পান তিনি।
১৭৯টি দেশের ২০ হাজার মনোনীত প্রার্থীদের তালিকা থেকে ৫০ জন শিক্ষককে বেছে নেওয়া হয় সর্বশেষ তালিকায়। এখানে ৩৭টি দেশের শিক্ষকরা প্রতিনিধিত্ব করছেন। আগামী বছরের ১৯ মার্চ দুবাইতে চূড়ান্ত বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।