ব্রেক্সিটের পরে এবার ফিক্সিট

base_1482393532-1

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে অখণ্ড ইউরোপের স্বপ্নে ফাটল ধরেছে আগেই। জুনের গণভোট ব্রেক্সিটের পক্ষে যাওয়ার পর ইউরোপজুড়ে যে উত্তেজনা শুরু হয় তাতে আশঙ্কা করা হয়েছিল বেশ কয়েকটি দেশ ইইউ থেকে বেরিয়ে যেতে উদ্যোগ নেবে। আশঙ্কা সত্যি প্রমাণ করে এবার ব্রিটেনের পথে হাঁটছে স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশ ফিনল্যান্ড। সেখানেও ব্রেক্সিটের আদলে ফিক্সিটের জন্য গণভোটের দাবি উঠেছে।

দেশটির জনপ্রিয় রাজনৈতিক দল ফিনিশ পার্টির যুব সংঘের পক্ষ থেকে অনলাইনে একটি পিটিশন উন্মুক্ত করা হয়েছে। এতে ইইউ ছাড়ার প্রক্রিয়া শুরুর লক্ষ্যে গণভোট আয়োজনের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। পিটিশনে এখন পর্যন্ত স্বাক্ষর করেছেন ৩৪ হাজার নাগরিক। আগামী ছয় মাসের মধ্যে ৫০ হাজার নাগরিকের স্বাক্ষর সংগ্রহ করে পিটিশনটি ফিনল্যান্ডের পার্লামেন্টে উপস্থাপন করা হবে।

যুব সংঘের মুখপাত্র সেবাস্টিয়ান তিনকিনেন বলেন, ‘ইইউ থেকে ফিনল্যান্ডের বেরিয়ে যাওয়া বিষয়ক আলোচনায় নতুনমাত্রা যোগ করতে আমরা এ উদ্যোগ নিয়েছি। যদিও বেরিয়ে যাওয়ার বিষয়টি ইউরোপের জন্য লজ্জার, কিন্তু আমাদের আর কোনো উপায় নেই।’

দেশটির সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাভো ভায়রায়নেন ইইউ বিরোধী নেতা হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। তার মতে, ‘ফিনল্যান্ডের ইউরোপীয় জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া যে কোনো সময় শুরু হতে পারে।’

২০১৫ সালে তিনি ‘সিটিজেন পার্টি’ নামে একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেছেন। দলটি একক ইউরোপীয় ব্যবস্থা ও মুদ্রা ব্যবহারের বিরোধী। ক্রমবর্ধমান ইইউ বিরোধী মনোভাবের কারণে পরবর্তী নির্বাচনে দলটি ভালো ফলাফল করতে পারে।

পরবর্তী নির্বাচন সামনে রেখে ক্ষমতাসীন দলের নির্বাচনী ইশতেহারেও গণভোট আয়োজনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করতে চায় যুব সংঘ। দলের সিনিয়র রাজনীতিকরাও নির্বাচনী ইস্যু হিসেবে বিষয়টিকে সামনে রেখে প্রচারণা চালাতে আগ্রহী। ২০১৯ সালের দেশটিতে পরবর্তী সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। একই বছর আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শেষে ব্রিটেন ইইউ থেকে বেরিয়ে যাবে।

সূত্র: ডেইলি এক্সপ্রেস