দক্ষিণ কোরিয়ায় ভক্সওয়াগন কর্মকর্তার কারাদণ্ড

volkswagen

কার্বন নির্গমন পরীক্ষায় ভক্সওয়াগনের কারসাজির বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রে চলমান তদন্ত নিষ্পত্তি হতে চলেছে। মার্কিন বিচার বিভাগ ভক্সওয়াগনকে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি জরিমানা করতে পারে। একই ঘটনায় দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত ভক্সওয়াগনের এক কর্মকর্তাকে দেড় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে। খবর রয়টার্স।

চলমান দেওয়ানি ও ফৌজদারি তদন্ত নিষ্পত্তির বিষয়ে ভক্সওয়াগন কর্মকর্তারা মার্কিন বিচার বিভাগের সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছতে চলেছেন বলে একটি সূত্র জানিয়েছেন। এজন্য জার্মান কোম্পানিটিকে ৩০০ কোটি ডলারের বেশি ক্ষতিপূরণ পরিশোধ করতে হবে।

সূত্র জানায়, ক্ষতিপূরণের অংক ৪০০ কোটি ডলার পর্যন্ত হতে পারে। আগামী সপ্তাহ নাগাদ এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে।

ভক্সওয়াগন কর্তৃপক্ষ ২০১৫ সালে স্বীকার করেছে, বছরের পর বছর ধরে তারা গাড়িতে একটি ত্রুটিপূর্ণ সফটওয়্যার সংযোজন করেছে। গাড়ি থেকে নিঃসৃত কার্বনের সঠিক পরিমাণ যাতে না জানা যায়, সেজন্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এ সফটওয়্যার সংযোজন করা হয়।

সফটওয়্যার কেলেঙ্কারি ফাঁসের পর যুক্তরাষ্ট্রে গাড়ি মালিক, ফেডারেল ও রাজ্য প্রশাসন এবং কোম্পানির পরিবেশকদের ক্ষতিপূরণ দাবি মেটাতে ভক্সওয়াগন এ পর্যন্ত ১ হাজার ৭৫০ কোটি ডলার দিতে সম্মত হয়েছে।

জার্মানিতে ভক্সওয়াগনের এক মুখপাত্র মার্কিন বিচার বিভাগের সঙ্গে সমঝোতার বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তবে তিনি বলেন, মার্কিন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কোম্পানির আলোচনা চলছে।

এদিকে সফটওয়্যার কেলেঙ্কারির জের ধরে দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত ভক্সওয়াগনের একজন নির্বাহীর বিরুদ্ধে দেড় বছরের দণ্ডাদেশ দিয়েছেন। নিঃসরণ ও শব্দমাত্রা পরীক্ষার নথি কারসাজির মাধ্যমে গাড়ি আমদানির ছাড়পত্র নেয়ার অপরাধে তাকে এ সাজা দেয়া হয়।

আদালতের বিবৃতিতে দণ্ডপ্রাপ্ত কর্মকর্তার বিস্তারিত পরিচয় দেয়া হয়নি। সিউল সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্ট কোর্টের বিবৃতিতে তার ডাকনাম ‘ইয়ুন’ উল্লেখ করা হয়। ভক্সওয়াগনের এ কর্মকর্তাকে জাল নথি প্রস্তুত, কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি এবং পরিবেশ আইন লঙ্ঘনের জন্য সাজা দেয়া হয়েছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

আদালতে ইয়ুনের সাজা ঘোষণার পর ভক্সওয়াগন কোরিয়া একটি বিবৃতি দিয়েছে। এতে বলা হয়, অডি ভক্সওয়াগন কোরিয়া প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের সঙ্গে সম্পূর্ণ সহযোগিতা করেছে এবং আদালতের পরবর্তী শুনানিতে সরল বিশ্বাসে অংশ নেবে।