বাংলাদেশে কারখানা করছে স্যামসাং

Samsung-Factoryবিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড স্যামসাং বাংলাদেশিদের হাতে সাশ্রয়ী মূল্যে পণ্য তুলে দিতে নরসিংদীতে একটি ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট করছে। এই উদ্যোগে স্যামসাংয়ের সঙ্গে থাকছে ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড।

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বৃহস্পতিবার নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার কামারগাঁওয়ে ১৬ একর জায়গার ওপর এই কারখানার ভিত্তি ফলক উন্মোচন করেন। কারখানাটিতে টিভি, রেফ্রিজারেটর, এসি, মাইক্রোওয়েভ ওভেন ও ওয়াশিং মেশিন প্রস্তুত করা হবে।

উদ্যোক্তারা বলছেন, স্যামসাংয়ের দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তিগত সহায়তায় এখানকার সব পণ্য প্রস্তুত করা হবে। সাড়ে ৭ লাখ স্কয়ার ফুটের এই প্ল্যান্ট থেকে বছরে চার লাখ রেফ্রিজারেটর, আড়াই লাখ মাইক্রোওয়েভ ওভেন, এক লাখ ২০ হাজার এসি, দুই লাখ টিভি এবং ৫০ হাজার ওয়াশিং মেশিন তৈরি হবে।

Samsung-Factoryপ্ল্যান্টটি উদ্বোধন করে শিল্পমন্ত্রী আমু বলেন, “বিশ্বখ্যাত স্যামসাং প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে প্রমাণিত হয়েছে বাংলাদেশে ভালো বিনিয়োগ পরিবেশ রয়েছে। এ প্ল্যান্টে ১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করা হচ্ছে। বাংলাদেশি ক্রেতারা সাশ্রয়ী মূল্যে স্যামসাং পণ্য কিনতে পারবে। তিন হাজার কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে এখানে।”

স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্যাংওয়ান ইউন বলেন, “নরসিংদীতে স্যামসাংয়ের এই উৎপাদন ইউনিটটি বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি, রাজস্ব বৃদ্ধি এবং ভবিষ্যতের ব্যবসা উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে।”

ফেয়ার ইলেকট্রনিক্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুহুল আল মাহবুব বলেন, “এটি আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় প্রযুক্তিভিত্তিক ইন্ডাস্ট্রি হবে। স্যামসাং মেশিনারি, প্রযুক্তি এবং মান নিয়ন্ত্রণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আমরা গ্রাহকদের সাশ্রয়ী মূল্যে স্যামসাংয়ের আন্তর্জাতিক মানের পণ্য তুলে দেওয়ার নিশ্চয়তা দিচ্ছি।”