Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

বিমান জরুরি অবতরণে বাধ্য করলেন যাত্রী

qatar-airwaysস্বামীর অবিশ্বস্ততা টের পাওয়ার পর ইন্দোনেশিয়ার দোহাগামী একটি বিমান জরুরি অবতরণ করতে বাধ্য করলেন এক নারী। রোববার কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমানে এ ঘটনা ঘটেছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, দোহা থেকে বালির দিকে রওনা দিয়েছিল কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইট কিউ-আর৯৬২। ওই বিমানে উঠেছিলেন এক ইরানি দম্পতি। সঙ্গে ছিল তাদের সন্তান।

বিমানযাত্রীদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, টেকঅফের ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই ঘুমিয়ে পড়েন ওই ব্যক্তি। সেই সুযোগে স্বামীর স্মার্টফোনটি নিয়ে নেন তিনি। ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারে ঘুমন্ত স্বামীর আঙুলের ছাপ দিয়ে তা আনলক করেন তিনি। এর পর স্মার্টফোন ঘেঁটে যা দেখেন তাতে তাঁর চোখ কপালে ওঠার জোগাড়। অন্য এক নারীর সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে তার স্বামীর। আর তাতেই তেলেবেগুনে জ্বলে ওঠেন তিনি। তার চিৎকারে ঘুম ভেঙে যায় ওই ব্যক্তির। এরপর মাঝ-আকাশেই শুরু হয় স্বামী-স্ত্রীর তুমুল ঝগড়া। তাদের নিরস্ত করার শত চেষ্টা করেও কোনও ফল হয়নি। বেগতিক দেখে জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন পাইলট। চেন্নাই বিমানবন্দরে নামিয়ে দেওয়া হয় তাদের।

চেন্নাই বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভারতীয় ভিসা না থাকায় বিপাকে পড়তে হয়েছে ওই দম্পতিকে। একদিন চেন্নাই থাকার পর তাদের কুয়ালালামপুরগামী একটি বিমানে তুলে দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে কাতার এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষের কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

chardike-ad