cosmetics-ad

মালয়েশিয়ায় আইএস সন্দেহে বাংলাদেশিসহ গ্রেফতার ৬

malaysia-police

জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সঙ্গে জড়িত সন্দেহে চার বিদেশিসহ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে মালয়েশিয়ার পুলিশ। গ্রেফতারকৃত চার বিদেশির মধ্যে একজন বাংলাদেশি নাগরিক। এছাড়া সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইন ও দক্ষিণ এশিয়ার আরেকটি দেশের একজন করে নাগরিক রয়েছেন। গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর থেকে ২৮ জানুয়ারির মধ্যে বিভিন্ন অভিযানে তাদের আটক করা হয়েছে। শুক্রবার মালয়েশিয়ার পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) মোহাম্মদ ফুজি হারুন এসব তথ্য জানিয়েছেন।

মালয়েশিয়ার আইজিপির বিবৃতিতে বলা হয়, পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চ ও সিঙ্গাপুরের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বিভাগের ঘনিষ্ঠ সহায়তায় এসব ব্যক্তিদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়। শুক্রবার ফুজি হারুন জানান, কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের পরিচালিত গোয়েন্দা কার্যক্রমের আওতায় তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আইজিপি আরও জানান, গত ১৯ ডিসেম্বর জোহর বারু এলাকা থেকে ৪৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। সিঙ্গাপুরের নাগরিক এই ব্যক্তির সঙ্গে সিরিয়ায় অবস্থানরত মালয়েশিয়ার আইএস নেতা আকেল জয়নালের নিয়মিত যোগাযোগ ছিল।

আইজিপি’র বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জয়নালকে অর্থ পাঠানো ছাড়াও জোহর বারু এলাকার একটি ভবনে হামলা চালাতে নতুন সদস্য নিয়োগের নির্দেশ পেয়েছিলেন ওই ব্যবসায়ী। মালয়েশিয়ার তদন্ত শেষ হওয়ায় গত ৭ জানুয়ারি তাকে সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয় বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

১৯ ডিসেম্বরেই ক্লাং এলাকা থেকে আটক করা হয় ৩১ বছর বয়সী বাংলাদেশি নাগরিককে। সেখানে পরিচ্ছন্নতাকর্মী হিসেবে কাজ করতো ওই বাংলাদেশি। আইজিপি জানান, আমাদের বিশ্বাস এই বাংলাদেশি আইএস-এর কট্টর সমর্থক এবং আইএসে সদস্য নিয়োগের দায়িত্ব ছিল তার ওপর।

তৃতীয় অভিযানে গত ১০ জানুয়ারি সেপাং থেকে দুই মালয়েশীয়কে গ্রেফতার করা হয়। আইএস সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তাদের বাইরের একটি দেশ থেকে ফেরত পাঠানো হয়। আইজিপি জানান, এদের একজন সিরিয়ায় অবস্থানরত মালয়েশিয়ার জঙ্গি খায়রুল আমিজান আজমিকে অর্থ দিয়েছে।

অপর অভিযানে গত ১৯ জানুয়ারি ফিলিপাইনের ২১ বছর বয়সী এক নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়। সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আবু সায়াফের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। অস্ত্র পরিচালনায় দক্ষ ফিলিপাইনের এই নাগরিক গত বছরের মার্চে মালয়েশিয়ায় চলে আসে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ গত ২৮ জানুয়ারি দক্ষিণ এশিয়ার একটি দেশের এক নাগরিককে আটক করা হয়। জঙ্গি সংশ্লিষ্টতায় তাকে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থা ইন্টারপোলের রেড নোটিশের তালিকাভুক্ত ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়।

সৌজন্যে- বাংলা ট্রিবিউন