cosmetics-ad

কেয়ারটেকারের বেতন ১ কোটি ৯ লাখ, শর্ত কেবল একটিই

east-brotherযুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফর্নিয়ার স্যান রাফায়েল বে-এর উপরেই রয়েছে ইস্ট ব্রাদার আইল্যান্ড। রয়েছে সুন্দর একটি লাইটহাউজও। জানা যায়, আমেরিকার বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য লাইটহাউজের মতো, এই বাতিঘরটিও নির্মাণ করেছিলেন পল জে পেলজ। এখানে প্রথম বার আলো জ্বালানো হয়েছিল ১৮৭৪ সালের ১ মার্চ।

প্রযুক্তির বাড়বাড়ন্তে লাইটহাউজের এখন আর প্রয়োজন হয় না। ফলে বেশির ভাগ বাতিঘরই এখন পর্যটকস্থল হয়ে উঠেছে। বাদ পড়েনি ‘ইস্ট ব্রাদার আইল্যান্ড লাইটহাউজ’-টিও।

ইস্ট ব্রাদার আইল্যান্ডের লাইটহাউজ কিপারের বসত বাড়িটি ১৯৮০ সাল থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়। পর্যটকরা যাতে এখানে এসে থাকতে পারেন, তার জন্য গঠন করা হয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাও। সপ্তাহে চার দিনের জন্য পর্যটকদের খুলে দেওয়া হয় ইস্ট ব্রাদার আইল্যান্ডটি। তাদের পরিষেবার জন্য সেখানেই থাকেন সংস্থার কর্মচারীরা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন-এর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এই দ্বীপে কেয়ারটেকারের পদে লোক নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। সপ্তাহে চার দিন তাদের কাজ করতে হলেও, থাকতে হবে ওই দ্বীপেই। মূল ভূখণ্ড থেকে পর্যটকদের নিয়ে আসা বা তাদের ফেরত নিয়ে যাওয়াও কেয়ারটেকারের দায়িত্ব। এ ছাড়া অতিথিদের আপ্যায়ন তো রয়েইছে। এই কাজের জন্য বেতন দেওয়া হবে ১ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যা ১ কোটি ৯ লাখ টাকা।

স্বাভাবিকভাবেই প্রচুর দরখাস্ত পড়েছে সংস্থার কাছে। তবে কেয়ারটেকারের পদের জন্য তিনটি বিশেষ গুণ দাবি করা হয় সংস্থার তরফ থেকে—

১। আগেও এমন কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকা প্রয়োজন

২। কোস্ট গার্ড কমার্শিয়াল বোট চালানোর লাইসেন্স থাকা প্রয়োজন

৩। সর্বোপরি, বিবাহিত না হলে কোনও ভাবেই এই পদের জন্য কেউ যেন আবেদন না করেন।

সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, প্রথম দু’টিতে উত্তীর্ণ হলেও, বেশিরভাগ ক্যান্ডিডেটই বাদ পড়ে যাচ্ছেন ওই তৃতীয় পয়েন্টের জন্য।

সৌজন্যে- আর্থসূচক