sentbe-top

জাপানে মুসলমানদের জন্য ‘মোবাইল মসজিদ’

mobile-mosque
জাপানের টোকিওতে মোবাইল মসজিদে এক সঙ্গে ৫০ জন নামাজ পড়তে পারবেন

২০২০ সালে জাপানের রাজধানী টোকিওতে অলিম্পিক গেমস অনুষ্ঠিত হবে। ওই সময় অন্যদে সঙ্গে বিশ্বের অনেক মুসলমানও দেশটিতে যাবেন। তাই জাপান সরকার ‘মোবাইল মসজিদ’ নামের একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে। বিশ্বের অন্যতম বড় এই ক্রীড়া আসরকে সামনে রেখে এই ‘মোবাইল মসজিদ’ তৈরি করেছে জাপান সরকার।

মোবাইল মসজিদ বানাতে চার বছর লেগেছে। ২৫ টনি ট্রাককে একটু বদলিয়ে সেটি নামাজের জন্য তৈরি করা হয়েছে। ৪৮ বর্গমিটারের ওই জায়গায় একসঙ্গে ৫০ জন নামাজ পড়তে পারবেন। মোবাইল মসজিদের ভেতর ওজুর জন্য পানি রয়েছে। কিবলার দিকও নির্দেশ করা আছে। এ প্রকল্পের জন্য জাপান সরকার ৯০ হাজার ডলার ব্যয় করেছে। অলিম্পিকের সময় মোবাইল মসজিদ বিভিন্ন স্টেডিয়ামের সামনে রাখা হবে।

mobile-mosque
মোবাইল মসজিদে ওজুর ব্যবস্থাও আছে

মোবাইল মসজিদের এ ধারণার জনক টোকিওর বাসিন্দা ইয়াসুহারু ইনোইউয়ে। এর আগে এথেন্সে ২০০৪ সালের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকসে ফুটবাথ তৈরি করেছিলেন তিনি। এরপর ২০১২ সালে লন্ডন গেমসে এক অনুষ্ঠান আয়োজন করেন তিনি। কাতারে একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করতে গিয়ে মোবাইল মসজিদ বানানোর এ ধারণা তাঁর চিন্তার মধ্য আসে। তিনি বলেন, ‘নামাজ পড়ার আরামদায়ক পরিবেশ তৈরির মধ্য দিয়ে মুসলমানদের ২০২০ সালে টোকিও অলিম্পিকসে আমন্ত্রণ জানাতে চাই।’

জাপানে ছোট-বড় মিলিয়ে প্রায় ২০০টি মসজিদ রয়েছে। তবে ‘মোবাইল মসজিদ’-এর মাধ্যমে যেমন অলিম্পিকের মতো বড় আসরের প্রচার ও প্রসারের কাজ চলছে, তেমনি এ ধারণা মুসলমানদের মধ্যে জনপ্রিয় করার চেষ্টাও করা হচ্ছে। তথ্যসূত্র: ইউরো নিউজ, এনএইচকে।

সৌজন্যে- প্রথম আলো

sentbe-top