cosmetics-ad

বাংলাদেশ দূতাবাস সিউল ও জর্জ ম্যাসন বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সমঝোতা

গত ১০ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখে সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাস ও জর্জ ম্যাসন বিশ্ববিদ্যালয়, দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে শিক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারক স্মাক্ষরিত হয়েছে।

বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষে দক্ষিণ কোরিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম ও জর্জ ম্যাশন বিশ্ববিদ্যালয়, দক্ষিণ কোরিয়ার পক্ষে ক্যাম্পাস ডিন ড. রবার্ট ম্যাটজ সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেন। এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের জর্জ ম্যাশন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোরিয়া ক্যাম্পাসে শিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধিসহ যোগ্য শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি লাভের সুযোগ তৈরি হলো। এ সমঝোতা স্মারকের কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে-শিক্ষাসংক্রান্ত তথ্য ও উপকরণ বিনিময়, জর্জ ম্যাশন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোরিয়া ক্যাম্পাস সম্পর্কে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের অবহিতকরণ, শিক্ষার সুযোগ সংক্রান্ত তথ্য বিনিময়, যোগ্য শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তির সুপারিশ ইত্যাদি। এ সমঝোতা স্মারকটি স্বাক্ষরের তারিখ থেকে  আগামী ৩ বছরের জন্য কার্যকর থাকবে।

এই  সমঝোতা স্মারকের ফলে যোগ্য বাংলাদেশী শিক্ষার্থীরা সর্বোচ্চ ছয় বছরের জন্য শিক্ষা বৃত্তি (টিউশন ফির ৫০%পর্যন্ত হ্রাস) পেতে পারেন। তাছাড়া এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষাদান কর্মসূচী ইংরেজিতে পরিচালিত হবে এবং শিক্ষার্থীগণ যুক্তরাষ্ট্রের এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সমমানের ডিগ্রি অর্জন করতে পারবেন। এছাড়া শিক্ষার্থীরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় মূল ক্যাম্পাসে তাদের শিক্ষাবর্ষের কিছু সময় অতিবাহিত করারও সুযোগ পাবেন।

জর্জ ম্যাসন বিশ্ববিদ্যালয় কমনওয়েলথ অফ ভার্জিনিয়ার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সংস্থা যার সদর দপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় অবস্থিত। দক্ষিণ কোরিয়ার ইনচনে বিশ্ববিদ্যালয়টির একটি শাখা ক্যাম্পাস রয়েছে।