cosmetics-ad

বৈশ্বিক শান্তি সূচকে ৯ ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ

GPi-LOGOwithText

বৈশ্বিক শান্তি সূচকে এক বছরে ৯ ধাপ পিছিয়েছে বাংলাদেশ। ১৬৩টি দেশের মধ্যে এবার বাংলাদেশের অবস্থান ৯৩তম। গত বছর বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৪তম। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক গবেষণা সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিক অ্যান্ড পিসের প্রকাশিত বৈশ্বিক শান্তি সূচকে এ তথ্য উঠে এসেছে।

গতকাল বুধবার লন্ডনে এই সূচক প্রকাশ করা হয়। সংস্থাটি এবার তাদের ১২তম বার্ষিক শান্তি সূচক প্রকাশ করেছে। দেশ ও অঞ্চলগুলোর মানুষের শান্তিতে থাকার তুলনামূলক পর্যালোচনার ভিত্তিতে এ সূচক প্রকাশ করে সংস্থাটি।

গত বছরের তুলনায় ৯ ধাপ পেছালেও এ সূচকে ভারত, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের ওপরে রয়েছে বাংলাদেশ। তবে ভুটান, শ্রীলংকা ও নেপালের পেছনে বাংলাদেশ। গত বছর ২ দশমিক শূন্য ৩৫ স্কোর নিয়ে সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৪তম। এবার স্কোর ২ দশমিক শূন্য ৮৪।

দক্ষিণ এশিয়ায় ভুটান (১৯তম), শ্রীলঙ্কা (৬৭তম) ও নেপালের (৮৪তম) পর বাংলাদেশের অবস্থান ৯৩তম। এরপর রয়েছে ভারত ১৩৬তম, পাকিস্তান ১৫১তম ও আফগানিস্তান ১৬২তম

প্রতিবেদনে বাংলাদেশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার ক্ষেত্রে উন্নয়ন ও সন্ত্রাসবাদ দমনে সাফল্যের পরও প্রতিবেশী দেশের সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির কারণে অবস্থার অবনতি হয়েছে। মিয়ানমার থেকে সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসায় প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এবার সূচকে ১৫ ধাপ নিচে নেমে গিয়ে মিয়ানমারের অবস্থান ১২২তম।

শীর্ষ ১০ দেশ

এবারের সূচকে শান্তি ও স্থিতিশীলতায় সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে আইসল্যান্ড। শীর্ষ দশের বাকি দেশগুলো হলো নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, পর্তুগাল, ডেনমার্ক, কানাডা, চেক রিপাবলিক, সিঙ্গাপুর, জাপান ও আয়ারল্যান্ড।

সর্বনিম্ন ১০ দেশ

শান্তি সূচকে সবচেয়ে নিচের অবস্থানে রয়েছে সিরিয়া। সবচেয়ে খারাপ অবস্থানে থাকা দশ দেশের বাকি ৯টি হলো আফগানিস্তান, সাউথ সুদান, ইরাক, সোমালিয়া, ইয়েমেন, লিবিয়া, ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ও রাশিয়া।