sentbe-top

অস্ট্রেলিয়ায় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেলেন বাংলাদেশের উর্শী

urshiঅস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের (এনএসডব্লিউ) আসন্ন রাজ্য সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পেয়েছেন সাবরিন ফারুকি উর্শী। দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট পার্লামেন্ট-উচ্চকক্ষ ও নিম্ন কক্ষ। রাজ্য নির্বাচনে তিনি উচ্চকক্ষে প্রথম বাংলাদেশি লেবার পার্টির (এএলপি) প্রার্থী হিসেবে অংশ নিচ্ছেন।

২৩ মার্চ অনুষ্ঠেয় রাজ্য সংসদ নির্বাচনে দেশটির বর্তমান বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে আইন পরিষদের একটি আসনে লড়বেন তিনি। এনএসডব্লিউ উচ্চকক্ষে মোট আসন সংখ্যা ৪২টি এবং সংসদ সদস্যের মেয়াদ আট বছর। প্রতি চার বছর অন্তর ২১টি আসনের সংসদ নির্বাচন হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজিতে অনার্স করেছেন উর্শী। তিনি ইউনিভার্সিটি অব নিউ সাউথ ওয়েলস থেকে মাস্টার্স (ল্যাংগুয়েজ ও টিচিং) এবং ২০১০ সালে ইউনিভার্সিটি অব সিডনি থেকে পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। বাংলাদেশের ঢাকায় বেড়ে ওঠা সাবরিনের। পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে সে সবার ছোট। সিডনিতে ১৫ বছর ধরে বসবাস করছেন।

তিনি ইউনিভার্সিটি অব সিডনিতে তিন বছর শিক্ষক হিসেবে ছিলেন। ফেডারেল সরকারের ব্যুরো পরিসংখ্যানে তিন বছর এবং ফেয়ার ওয়ার্ক কমিশনে পাঁচ বছর চাকরি করেন।

অস্ট্রেলিয়ার মূলধারার রাজনীতিতে প্রায় চার বছরের অধিক সময় যুক্ত থাকা সাবরিন ফারুকি উর্শী বলেন, ‘আমি যেসব স্বেচ্ছাসেবক কাজগুলো করি, তা যদি রাজনীতির ক্ষেত্রও প্রয়োগ করি, তবে বড় মাপের প্লাটফর্মের সুযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও সংসদে জনপ্রতিনিধি ও নীতিনির্ধারক হিসেবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।’

উর্শী বলেন, ‘আমি চাই সমাজকল্যাণ ও রাজনীতির যোগ্যতাকে কাজে লাগিয়ে সমাজটাকে আরও গতিশীল করে তুলতে। নারীদের এখন বহুমুখী প্রতিভা রয়েছে, যা কাজে লাগিয়ে কল্যাণমুখী সমাজ গড়ে তোলা সম্ভব।

সাবরিন ফারুকি নিযুক্ত আছেন নব মাইগ্রেন্ট এবং রিফিউজি সেটেলমেন্টের সঙ্গে। স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন শক্তি (এনএসডব্লিউ) ও সিতারাস স্টোরি সংগঠনের সঙ্গেও কাজ করছেন। ‘সিতারাস স্টোরি’ সংস্থার মাধ্যমে তহবিল সংগ্রহ করে বাংলাদেশের মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য সহযোগিতা করেন।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ

sentbe-top