Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রে বিস্মিত পশ্চিমা বিশেষজ্ঞরা

missile
উত্তর কোরিয়ার নতুন ক্ষেপণাস্ত্র

উত্তর কোরিয়া সম্প্রতি যে স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে তাতে পশ্চিমা বিশেষজ্ঞ ও বিশ্লেষকরা বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। তারা বলেছেন, এ পরীক্ষার মাধ্যমে উত্তর কোরিয়া নিজের বেড়ে চলা সক্ষমতা প্রদর্শন করেছে। পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার এ ক্ষেপণাস্ত্র মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে সক্ষম বলেও তারা জানিয়েছেন।

chardike-ad

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের পরমাণু আলোচনা ভেঙে যাওয়ার পর পিয়ংইয়ং এ পরীক্ষা চালায় এবং এর মাধ্যমে পরিষ্কার হয়েছে যে, তারা নতুন ক্ষেপণাস্ত্র বানাতে খুবই তৎপর। আমরিকার সঙ্গে সম্ভাব্য যেকোনো যুদ্ধে এ অস্ত্র ব্যবহার করতে পারবে উত্তর কোরিয়া।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন উত্তর কোরিয়ার নতুন ক্ষেপণাস্ত্রকে ছোট করে দেখানোর চেষ্টা করলেও বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ ক্ষেপণাস্ত্রকে লুকানো যেমন সহজ তেমনি সহজেই উৎক্ষেপণ করা যাবে এবং সুবিধামতো গতিপথ পরিবর্তন করতে পারবে।

ট্রাম্প প্রশাসন জোর দিয়ে বলছে, এ ক্ষেপণাস্ত্র ছোট এবং আমেরিকায় তা পৌঁছাতে পারবে না। কিন্তু অস্ত্র বিশেষজ্ঞ মেলিসা হানহ্যাম বলেন, “এ ক্ষেপণাস্ত্র ছোট, সহজেই লুকানো যাবে, নিয়ন্ত্রণ করতে সহজ এবং এ ক্ষেপণাস্ত্র পরমাণু ওয়ারহেড বহন করতে পারবে।” মেলিসা বলেন, উত্তর কোরিয়া গত বৃহস্পতিবার যে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে তা রাশিয়ার এসএস-২৬ ইস্কান্দার ক্ষেপণাস্ত্রের মতো। এ ক্ষেপণাস্ত্র দক্ষিণ কোরিয়া ও আমেরিকার ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিতে পারবে।