cosmetics-ad

পাসপোর্টে নাম-বয়স সংশোধন বন্ধ করে দিয়েছে অধিদপ্তর

passport

পাসপোর্টে নাম ও বয়স সংশোধনের আবেদন নেওয়া আকস্মিকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর। নাম-বয়স সংশোধন করে বিভিন্ন জনের বিভিন্ন দেশে গিয়ে ধরা পড়ে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করাকে এই পদক্ষেপ নেওয়ার কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাসুদ রেজওয়ান।

তিনি বুধবার বলেছেন, “যে নামে এবং বয়স উল্লেখ করে একবার পাসপোর্ট হয়ে গেছে, তা আর পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই।”

গত ৭ মার্চ থেকে অধিদপ্তর নাম, বাবার নাম, মায়ের নাম ও বয়স পরিবর্তনের আবেদন নিচ্ছে না, যদিও পাসপোর্ট নীতিমালায় নাম কিংবা বয়স সংশোধনের সুযোগ এখনও রয়েছে।

নীতিমালা অনুযায়ী, নাম সংশোধনের ক্ষেত্রে এসএসসি বা সমমানের সনদ অথবা প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতের হলফনামা অথবা সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে হয়।

অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বিধিমালা সংশোধন না হলেও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত এক বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, নাম-বয়স পরিবর্তন করে পাসপোর্ট নিয়ে ধরা পড়া বেশ কিছুর বিষয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে সম্প্রতি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়। কয়েকজন কর্মকর্তা স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে দেখা করেও বিষয়টি তোলেন। “তাদের চাপাচাপিতে আমাদের এই অবস্থানে যেতে হয়েছে,” বলেন ওই কর্মকর্তা।

পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, অনেকে কাজের সন্ধানে বিদেশ গিয়ে প্রতারিত হয়ে ফিরে এসে নাম, বয়স সংশোধন করে ফের বিদেশ যান। কিন্তু পরে ধরা পড়েন।

মহাপরিচালক রেজওয়ান বলেন, “এই ব্যক্তি যখন পাসপোর্ট পরিবর্তন করে তার নিজের নামে করে ভিসা নিতে যাবেন, তখন ফিঙ্গার প্রিন্ট দেওয়ার সাথে সাথে আগের নাম, পিতা-মাতার নাম, বয়স উঠে আসবে। ফলে তিনি ভিসা পাবেন না বা ইমিগেশন তাকে আটকে দেবে।” এই পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিকভাবে দেশের সুনাম রক্ষায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, বলেন তিনি।

মহাপরিচালক বলেন, “নাম পরিবর্তনের জন্য বিভিন্ন পর্যায় থেকে অনেক তদবীর, অনুরোধ আসে, আমি সন্মানের সাথে ফিরিয়ে দেই। এখানে করার কিছু নাই।”

তবে পাসপোর্টের ঠিকানা পরিবর্তনে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। স্থায়ী ঠিকানা পরিবর্তন করতে হলে নতুন করে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স লাগবে বলেন জানান পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।