সুইডেন মসজিদে ‘ভালোবাসা বোমা’

Love-bombসম্প্রীতির বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার এ এক অভিনব প্রয়াস। জুমার নামাজ তখনো শুরু হতে খানিক্ষণ বাকি। তার আগেই গোটা মসজিদের দরজায় পড়ল একাধিক বোমা। সঙ্গে একাধিক চিঠি। সন্ত্রাসবাদীদের যে কোনো ধর্ম হয় না, এই অভিনব উদ্যোগে বিশ্ববাসীকে সেই বার্তাই দিল সুইডেন বাসিন্দাদের একাংশ।

বিষয়টি একটু খোলসা করা যাক। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই সুইডেনে মুসলিম-বিরোধী প্রচার চালাচ্ছে একদল দুষ্কৃতিকারী। গত বৃহস্পতিবার দক্ষিণ সুইডেনের বিখ্যাত আপসালা মসজিদে নামাজ চলাকালীন হঠাত্ পেট্রোল বোমা ছোড়া হয়। সেদিন ছিল বড়দিন। পুলিশের তৎপরতায় অল্পের জন্য মসজিদটি আগুন লাগেনি। কিন্তু বোমার আঘাতে পাঁচজন জখম হন। এরপরই দেশের বিভিন্ন জায়গায় মসজিদে হামলার ঘটনার খবর আসতে থাকে।

ভিন ধর্মকে আঘাত করার বিরুদ্ধে প্রশাসনের পাশাপাশি গর্জে উঠেছে সুইডেনের নাগরিক সমাজও। মসজিদে হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা করে অভিনব উদ্যোগ নিলেন সুইডেনবাসীরা। গত শুক্রবার তখনো নমাজ শুরু হয়নি। স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের সদস্যরা নামাজ পড়তে মসজিদে গিয়ে দরজায় দেখতে পান সেই অভিনব উদ্যোগ। যার পোশাকি নাম ‘লাভ বম্বড’ (ভালোবাসা বোমা)। মসজিদের দরজায় কয়েকশো হার্ট বেলুন, ফুলের তোড়া আর গ্রিটিংস কার্ডে লেখা, ‘আমার মসজিদ কেউ স্পর্শ করবে না।’ সব কার্ডেই মসজিদে হামলার তীব্র নিন্দা করা হয়েছে।

ভিন সম্প্রদায়ের মানুষের প্রতি এহেন সৌহার্দের বার্তা ছড়িয়ে দেয়ার উদ্যোগটি ছিল স্থানীয় বাসিন্দাদেরই। একই আপসালা মসজিদে সে দিন লাভ বম্বড-কে সমর্থন জানিয়ে জড়ো হন দেশের তিনটি বড় শহর স্টকহোম, গোথেনবার্গ ও মালমো-র কয়েক হাজার মানুষ।