sentbe-top

দেশ সেরা হাফেজ জন্মান্ধ কলিম উদ্দিন: মুগ্ধ সৌদি রাষ্ট্রদূত

kolim-hafejঅন্তরে তার মহান আল্লাহ তায়ালার অমোঘ বাণী। সুললিত কণ্ঠে যেন মন্ত্রমুগ্ধ যাদুর মূর্ছনা। মোহনীয় তেলাওয়াতে হৃদয়ে জাগে প্রশান্তির স্পন্দন। সেই বিস্ময়কর বালক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হাফেজ কলিম উদ্দিন আবারো নিজের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করলো।

সিলেটের সেই কৃতি সন্তান নগরীর জামিয়া মাছুমিয়া ইসলামিয়া মাছিমপুর মাদরাসার ছাত্র। ২৮ অক্টোবর আবারো নিজের দ্যুতি ছড়িয়ে দিলো।

ওই দিন রাজধানী ঢাকার গুলশানে সৌদি দূতাবাস আয়োজিত জাতীয় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় সারাদেশের ক্ষুদে হাফেজদের পেছনে ফেলে প্রথম স্থান অর্জন করেন জন্মান্ধ হাফেজ কলিম সিদ্দিকী। তাকে নিয়ে গর্বিত মাছিমপুর মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

একই সঙ্গে আনন্দিত সিলেটবাসী। হাফেজ কলিম সিদ্দিকীর তেলাওয়াত শুনে মুগ্ধ হয়ে যান সৌদি রাষ্ট্রদূত। তিনি দূতাবাসে হাফেজ কলিম সিদ্দিকী ও তার ওস্তাদদের আমন্ত্রণ জানান। সেখানে হাফেজ কলিমের হৃদয়গ্রাহী কোরআন তেলাওয়াতে মুগ্ধ হয়ে তাকে ৫শ’ ডলার পুরস্কারও দেন রাষ্ট্রদূত।

এ সময় দূতাবাসে উপস্থিত ছিলেন- মাদরাসার সহকারী পরিচালক হযরত মাওলানা হাফেজ শহীদ আহমদ, মাওলানা শিব্বির আহমদ ও হাফেজ কাওছার আহমদ। ইতোপূর্বে কলিম সিদ্দিকী কুরআনের আলো হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতাসহ জাতীয় ও আঞ্চলিক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছে।

কলিম সিদ্দিকী তার মাদরাসা শিক্ষকদের কাছে কৃতজ্ঞ। সবার স্নেহ-ভালবাসা আর দোয়া নিয়ে জীবনের অনেক পথ পাড়ি দিতে চায় কলিম। আরো অধ্যাবসায় ও পরিশ্রমের মাধ্যমে দেশ ও জাতির জন্য আরো বড় সম্মান বয়ে আনতে চায় সে।

অসাধারণ মেধাবী কলিম সিদ্দিকী একদিন বিশ্বের সেরা সম্মান অর্জন করবে এটাই সবার প্রত্যাশা।

sentbe-top