সিলেটে ঈদ জামাত শেষে অর্থমন্ত্রী: বন্যার্তদের জন্য যথেষ্ট ত্রাণ রয়েছে

muhit

পাহাড়ি ঢলে সিলেটের কয়েক অঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। তবে এ বন্যা মোকাবিলার জন্য সরকারের কাছে যথেষ্ট ত্রাণ রয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

আজ শনিবার সিলেটে শাহি ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশের কিছু এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। এ দুর্যোগ মোকাবিলা করতে সরকার তৎপর রয়েছে। সরকারের কাছে যথেষ্ট ত্রাণ রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে সেগুলো বিতরণ করা হবে।

সিলেটের প্রধান এই জামাতে অর্থমন্ত্রী ছাড়াও ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ কে আবদুল মোমেনসহ প্রশাসনিক, রাজনৈতিক, পেশাজীবী, সুশীল সমাজ এবং বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। ঈদের জামাত উপলক্ষে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শাহি ঈদগাহের ভেতরে ও বাইরে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়। এ ছাড়া প্রতিবারের মতো ঈদগাহের পাশাপাশি বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা এবং খোলা মাঠে ঈদ জামাতের আয়োজন করা হয়।

sentbe BT

জামাতে বয়ান দেন শাহি ঈদগাহের মসজিদের খতিব মোশতাক আহমদ। ইমামতি করেন বন্দরবাজার জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা কামাল উদ্দিন।

জামাতের আগে সিলেটবাসীসহ দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

অর্থমন্ত্রী তাঁর ঈদের শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেন, ‘সিলেটের এ ঈদগাহ ৫০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী স্থান। উন্নয়নের জন্য রমজানের এক মাস চমৎকারভাবে কাটিয়েছে দেশবাসী। এ এক মাস শয়তান থাকে না কোথাও। আমরা দীর্ঘ এক মাস যেভাবে পুণ্যের পথে যাত্রা করেছি, আগামী বছরেও এভাবে পুণ্যের পথে চলতে হবে।’

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘রমজান থেকে সংযম শিক্ষা নিয়ে হিংসা-বিদ্বেষ ভুলে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।’