sentbe-top

বাংলাদেশে শুরু হলো স্নাতক গবেষকদের জন্য ফেলোশিপ

feloshipস্নাতক শিক্ষার্থীদের গবেষণায় উদ্বুদ্ধ করতে বাংলাদেশে শুরু হলো স্নাতক গবেষণা ফেলোশিপ (আন্ডারগ্রাজুয়েট রিসার্চ ফেলোশিপ)। যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংগঠন ‘গ্লোবাল সেন্টার ফর ইনোভেশন এন্ড লার্নিং এবং ঢাকা ইউনিভার্সিটি রিসার্চ সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে এই ফেলোশিপ নিয়ম শুরু হয়।

১২ সেপ্টেম্বর, বুধবার বর্ণাঢ্য এক অনুষ্ঠানে এই ফেলোশিপ প্রদান করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় টিএসসি অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের নবীনবরণ ও ফার্স্ট আন্ডারগ্রাজুয়েট রিসার্চ ফেলোশিপ প্রদান অনুষ্ঠান-২০১৮। এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রায় ৪৫০ নবীন সদস্যকে বরণ করে নেওয়ার পাশাপাশি গবেষণা সংসদের ২০টি গবেষণা টিম থেকে ৩টি গবেষণা টিমকে ফেলোশিপ প্রদান করা হয়।

ফেলোশিপ প্রাপ্ত টিম তিনটি এবং তাদের প্রপোজাল গুলো হলো:

1. A Research Proposal on-Challenges Facing by Female Students in Politics of University of Dhaka: An Exploratory Research by DURS Politics, Law & Legal System Team

2. A research proposal on-Transportation Services for the Students of
University of Dhaka: An Analysis by DURS Social Science Team

3. A research proposal on- Impact of Indian Media Contents on Bangladeshi Audience by DURS Arts & Culture Team

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাইফুল্লাহ সাদেক এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি (শিক্ষা) অধ্যাপক নাসরীন আহমাদ।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের গবেষণা সংসদ একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। গবেষণায় তরুণদের এই উদ্যোগ বাংলাদেশের গবেষণার পট পরিবর্তন করবে বলে বিশ্বাস করি। এই ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সবসময় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আছে। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তরুণদের গবেষণা আগমন উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করবে। স্নাতক গবেষণায় ফেলোশিপ প্রদানের এই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে বিশ্বাস করি।

feloshipঅনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ এবং সেন্টার ফর জেনোসাইট স্টাডিজ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ।

তিনি নবীন গবেষকদের উদ্দেশ্যে ‘বাংলাদেশে গবেষণার বর্তমান ও ভবিষ্যত’ বিষয়ের উপর বক্তব্য উপস্থাপন করেন। তিনি গবেষণার ক্ষেত্র হিসেবে বর্তমানকে নয়, বরং অতীত ও ভবিষ্যতের উপর অত্যধিক গুরুত্বারোপের কথা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, দেশের গবেষণার বর্তমান অবস্থা বলতে চাই না। তবে অতীত থেকে আমরা শিক্ষা নিতে পারি। আমাদের গবেষণার মূল বিষয় হতে হবে এই যে, আমরা ভবিষ্যত কিভাবে পরিবর্তন করবো সে বিষয়ে কাজ করা। গবেষণার মাধ্যমে আমাদের ভবিষ্যতকে পরিবর্তন করতে হবে। এই ক্ষেত্রে তরুণদের এই ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ দারুণ ভূমিকা রাখবে।

অতিথিদের বক্তব্য শেষে পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে ফেলোশিপপ্রাপ্ত টিমগুলো তাদের রিসার্চ প্রপোজালগুলো একে একে উপস্থাপন করে। সবশেষে মনোরম সাংস্কৃতিক অংশের মাধ্যমে শেষ হয় নবীন গবেষকদের জন্য গ্লোবাল সেন্টার ফর ইনোভেশন এন্ড লার্নিং-এর সাথে যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানটি ।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে স্নাতক পর্যায়ের তরুণ শিক্ষার্থীদের গবেষণামনস্ক করে গড়ে তোলার জন্য এ ফেলোশিপ প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানান আয়োজকরা।

২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রথম গবেষণাভিত্তিক সংগঠন ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদ’। সংগঠনটি ইতিমধ্যে তাদের টিম নিয়ে আন্তর্জাতিক সেমিনার ও গবেষণাভিত্তিক কর্মশালায় অংশগ্রহণের অভিজ্ঞতা অর্জনের পাশাপাশি গবেষণায় তরুণ শিক্ষার্থীদের আগ্রহ সৃষ্টির লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে নিরন্তর।

sentbe-top