sentbe-top

পাসপোর্ট আবেদনে এনআইডির মূল কপি দেখানো বাধ্যতামূলক

nid-passportপাসপোর্টের আবেদন করার সময় আবেদনকারীর মূল জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) দেখাতে হবে। এটি না দেখাতে পারলে পাসপোর্টের আবেদন গ্রহণ করবে না বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের পক্ষ থেকে সম্প্রতি এক অফিস আদেশে দেশের সব অফিসগুলোকে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। বুধবার থেকে আদেশটি কার্যকর করা হয়েছে।

আগে পাসপোর্টের আবেদনের জন্য সত্যায়িত করা দুইকপি এনআইডির ফটোকপি জমা দিতে হত। এটির পাশাপাশি এখন মূল কপি প্রদর্শনের বিষয়টি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের একাধিক পরিচালক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তারা জানান, এনআইডির ফটোকপি জমা দিলে এটি আসল নাকি নকল তা যাচাই-বাছাইয়ের সুযোগ থাকে না, জালিয়াতির সম্ভাবনা থাকে। তাই নতুন এই নিয়ম চালু হয়েছে।

অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন খান বলেন, পাসপোর্ট আবেদনের সময় অনেকসময় এনআইডির ফটোকপি প্রদর্শন করেন যা অনেকসময় যাচাই-বাছাই করা যায় না। তাই মূল এনআইডি প্রদর্শন করতে বলা হয়েছে। তবে কারও এনআইডি না থাকলে সেক্ষেত্রে জন্ম নিবন্ধন সার্টিফিকেটের মূল কপি প্রদর্শন করতে পারবে।

পাসপোর্ট আবেদনের জন্য যা যা প্রয়োজন:

১। পাসপোর্ট আবেদনের জন্য পূরণকৃত নির্ধারিত ফর্ম। আবেদনকারী নতুন হলে দুই কপি ও পুরাতন হলে ১ কপি পূরণ করতে হবে।

২। দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি আঠা দিয়ে লাগানো হতে হবে।

৩। সত্যায়িত করা জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্মনিবন্ধনের দুই কপি ফটোকপি।

৪। অপ্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে বাবা-মা’র স্ট্যাম্প সাইজের ছবি।

৫। অফিসিয়াল পাসপোর্টের ক্ষেত্রে সরকারি জিও’র কপি

৬। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে পেনশনবুকের ফটোকপি।

৭। পেশাগত সনদের সত্যায়িত কপি। (অফিস আইডি কার্ডের ফটোকপি)

ফর্মে যারা সত্যায়িত করতে পারবেন: আবেদন ফরমের সত্যায়ন করতে পারবেন- ১. সাংসদ ২. সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, ডেপুটি মেয়র ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর ৩. গেজেটেড কর্মকর্তা ৪. বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ৫. উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ৬. পৌরসভার মেয়র ৭. বেসরকারি কলেজের শিক্ষক ৮. বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ৯. দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক ১০. পৌর কাউন্সিলর ১১. রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক ও স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা বা করপোরেশনের নতুন জাতীয় বেতন স্কেলের সপ্তম বা তদূর্ধ্ব গ্রেডের কর্মকর্তারা।

ফি: ২১ দিনের সাধারণ পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ৩,৪৫০ টাকা (১৫% ভ্যাটসহ)। ৭ দিনের জরুরি পাসপোর্টের ক্ষেত্রে ৬,৯০০ টাকা (১৫% ভ্যাটসহ)

sentbe-top