cosmetics-ad

ইরানের বুদ্ধির কাছে ধরা খেল যুক্তরাষ্ট্র

iran-ship

প্রায় দুই মাস যাবৎ নতুন করে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের উত্তেজনা চলছে। এরই মধ্যে ভূমধ্যসাগরে ভাসতে থাকা তেলবাহী ট্যাংকার নিয়ে ইরান কিছুটা চাপে পড়ে। কিন্তু ওয়াশিংটনকে বোকা বানিয়ে তেহরান শেষ পর্যন্ত পরিস্থিতি নিজেদের দিকে নিয়ে গেছে। যুক্তরাষ্ট্র ওই ট্যাংকারকে আটক করবে বলে নানাভাবে হুমকি দিলেও ইরান নৌযানটিতে থাকা তেল বিক্রি করে দিয়েছে। সোমবার (২৬ আগস্ট) গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছে ইরান সরকারের মুখপাত্র আলী রাবিই।

আলী রাবিই জানান, ইরান নৌযানটিতে থাকা ২১ লাখ ব্যারেল অপরিশোধিত তেল বেচে দিয়েছে। ওই তেলের দাম ছিল প্রায় ১৩০ মিলিয়ন ডলার। এ তেল কারা কিনেছে তা গোপন রাখেন তিনি। ওয়াশিংটনের সঙ্গে খেলায় মাঝপথে তৃতীয়পক্ষকে দাঁড় করাল তেহরান। ফলে ওই ট্যাংকার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো পরিকল্পনা থাকলেও তাদের নতুন করে ভাবতে হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, ইরানের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়- দেশটি ইউরোপীয় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সিরিয়ায় তেল নিয়ে যাচ্ছে। এ অভিযোগে গত ৪ জুলাই জিব্রাল্টার প্রণালী থেকে আদ্রিয়ান দারিয়া-১ নামে সুপার ট্যাংকারটি আটক করে যুক্তরাজ্যের নৌবাহিনী। এর প্রতিবাদে একটি ব্রিটিশ ট্যাংকারকে পারস্য উপসাগর এলাকা থেকে আটক করে ইরান। বিষয়টি নিয়ে দুদেশের মধ্যে উত্তেজনা চরমে পৌঁছে।

সিরিয়ায় তেল নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি ইরান শুরু থেকেই অস্বীকার করছিল। শেষ পর্যন্ত ইউরোপীয় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোথাও ট্যাংকারটি যাবে না শর্তে ইরান লিখিত প্রতিশ্রুতি দেয়। এতে ট্যাংকারটি ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ব্রিটেনশাসিত জিব্রাল্টার অঞ্চলের কর্তৃপক্ষ। কিন্তু গত ১৬ আগস্ট ইরানের ওই ট্যাংকার আটক করতে যুক্তরাষ্ট্রের আদালত পরোয়ানা জারি করে। এরপরই অনিশ্চয়তায় পড়ে যায় ইরান। শেষ পর্যন্ত তেল বেচে দিয়ে বুদ্ধির খেলায় জিতল ইরান।