cosmetics-ad

পাকিস্তানে বিমান বিধ্বস্তে ৯৭ মৃত্যু: পাইলট ব্যস্ত করোনার আলোচনায়

pia-crash

পাইলট এবং এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল রুমের ভুলেই গত মাসে পাকিস্তানে যাত্রীবাহী একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়; মারা যান ৯৭ আরোহী। দেশটির এই বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় প্রাথমিক এক তদন্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে বুধবার। এতে বলা হয়েছে, বিমানটি বিধ্বস্তের সময় পাইলট সহযোগী পাইলটের সঙ্গে করোনা মহামারির আলোচনায় ব্যস্ত ছিলেন।

গত ২২ মে পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের (পিআইএ) যাত্রীবাহী একটি বিমানের উভয় ইঞ্জিন বিকল হলে করাচি বিমানবন্দরের কাছে বিধ্বস্ত হয়। এতে বিমানের ৯৭ আরোহী মারা গেলেও প্রাণে বাঁচেন মাত্র দু’জন।

দেশটির সংসদে তদন্ত প্রতিবেদন উপস্থাপন করতে গিয়ে পাক বেসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী গোলাম সারওয়ার খান বলেন, পাইলটের পাশাপাশি বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল রুমের কর্মীরা মানসম্মত বিধি-বিধানগুলো মানেননি।

তিনি বলেন, পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী এয়ারবাস এ৩২০ অবতরণের চেষ্টার সময় পাইলট করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ে আলোচনা করছিলেন। পাইলট এবং কো-পাইলট মনযোগী ছিলেন না। তাদের পুরো কথোপকথনজুড়ে ছিল করোনাভাইরাস।

পাকিস্তানি বিমান বিধ্বস্তের এই ঘটনা তদন্তকারী তলে ছিলেন ফ্রান্স সরকার ও বিমান পরিবহন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তারা বিমানের ভয়েস রেকর্ডার ও অন্যান্য তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে বিমান বিধ্বস্তের কারণ শনাক্ত করেছেন।

মন্ত্রী বলেন, পরিবহনের জন্য বিমানটি শতভাগ উপযোগী ছিল; কোনও ধরনের যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল না।

সূত্র: এএফপি।