cosmetics-ad

ঢাকেশ্বরী ও রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শন করলেন মোদি

modi

ঢাকেশ্বরী মন্দিরে পূজার মধ্য দিয়ে রবিবার দিন শুরু করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপর তিনি রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শন করেন।

রবিবার সকালে ৮টা ৪৫ মিনিটে তিনি মন্দিরে প্রবেশ করেন। সেখানে তাকে অভ্যর্থনা জানান ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। এসময় মন্দিরের সভাপতি জে এলা ভৌমিক ও সাধারন সম্পাদক নারায়ন সাহা উপস্থিত ছিলেন।

৮টা ৫৫মিনিটের দিকে তিনি ঢাকেশ্বরী মন্দিরে পূজা শেষ করে বেরিয়ে আসেন। নরেন্দ্র মোদির আগমনকে সামনে রেখে ভারত থেকে একটি সিকিউরিটি টিম চার-পাঁচদিন আগে মন্দির প্রাঙ্গণ ঘুরে গেছেন। এছাড়া দেশের কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা সেখানে উপস্থিত রয়েছেন।

ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে বের হয়ে তিনি রামকৃষ্ণ মিশন পরিদর্শনে রওয়ানা হন। ৯টা ১৩ মিনিটের দিকে সেখানে পৌঁছান তিনি। সেখানে তাকে বরণ করে নিতে উপস্থিত ছিলেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুহিতানন্দ। সঙ্গে ছিলেন ঢাকা রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী ধ্রুবেশানন্দ এবং রামকৃষ্ণ মিশনের তরফে জনসংযোগের ভারপ্রাপ্ত স্বামী শুভকরানন্দ।

এরপর বেলা ১০টা ১০মিনিটে রাজধানীর বারিধারায় ভারতীয় হাইকমিশনের নতুন চ্যান্সারি কমপ্লেক্স উদ্বোধনে যোগ দেবেন মোদি। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তিনি। এরপর রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে মোদির সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে বেলা ১২টা ৪০ মিনিটে। এরপর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিশেষ মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন নরেন্দ্র মোদি।

দুপুরে খানিকটা বিশ্রামের পর বিকাল ৩টায় হোটেল সোনারগাঁওয়ের সুরমা হলে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের সঙ্গে মোদির বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। তারপর একে একে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ হোটেল সোনারগাঁওয়ে এসে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করবেন।

সন্ধ্যা ৬টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রয়েছে নরেন্দ্র মোদির বিশেষ বক্তৃতা। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে ৭টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত এ কর্মসূচিতে অংশ নেওয়ার পরপরই তিনি নিজ দেশে ফেরার উদ্দেশে যাবেন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে।

সেখানে রাত ৮টা ১০ মিনিটে ভিভিআইপি টারমাকে তাকে বিদায় জানাতে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাত ৮টা ২০ মিনিটে ভারতীয় বিমান বাহিনীর বিশেষ প্লেনে করে ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে নরেন্দ্র মোদির।