cosmetics-ad

আইএসের বিলাসবহুল সদর দফতর

is-1

আরব্য রজনীর রূপকথারই যেন বাস্তব! চারিদিকে ধূসর মরুভূমি। তারই মাঝে শ্বেতশুভ্র প্রাসাদ। মরুদ্যানের মতো বিশাল বাগান। নানা ফুল ও ফলের গাছে ভরা। ঝরনার শব্দ প্রাণ জুড়িয়ে দেয়। কত বড় সেই প্রাসাদ? না, বাইরে থেকে দেখে আন্দাজ করা মুশকিল।

সুবিশাল বললেও বাহুল্য হয় না। শ্বেতপাথরের সুক্ষ্ণ কাজ চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। অসংখ্য খেজুর গাছে ঘেরা গোটা প্রাসাদ। সিরিয়ার মরুভূমির মাঝে এহেন বিলাসবহুল প্রাসাদটিই যে আইএসের সদর দফতর, প্রথমে বিশ্বাস করতে চাননি অনেকেই।

is-2জানা গেছে, সিরিয়ার মরুভূমির মাঝখানে তৈরি ওই প্রাসাদটি নাকি কাতারের রাজ পরিবারের থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে আইএস। শেখ তামিম বিন হামাদ বিন খালিফা আল থানি নামে আরবের এক ধনকুবের তৈরি করেছিলেন ওই প্রাসাদ। আপাতত যেটি আইএসের সদর দফতর।

সম্প্রতি আইএস তাদের ওয়েবসাইটে নতুন অফিসের কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেছে।

is-3ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে, গোটা প্রাসাদটিই তৈরি শ্বেতপাথরে। সুইমিং পুল, ফলের বাগান। দেশি-বিদেশি ফুলে সাজানো গোটা চত্বর। দামি আসবাব দেখলে চোখ কপালে ওঠে। বাহারি আলোয় রাতে ওই প্রাসাদ রূপকথার রাজ্য হয়ে ওঠে।

ব্রিটিশ মুদ্রায় গোটা প্রাসাদটি আনুমানিক মূল্য দুই শ’ কোটি পাউন্ড।