sentbe-top

‘রেমিটেন্স ফি নিয়ে ২৪ জুলাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত’

remittanceরেমিটেন্স প্রবাহের নিম্নগতিতে চাপের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ বর্তমান সরকার। প্রবাহ বাড়াতে ফি কমানোসহ নানা উদ্যোগ নিতে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা করে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ বিষয়ে আগামী ২৪ জুলাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানায়, রেমিটেন্স ফি কমানোর বিষয়ে বুধবার রেমিটেন্স আহরণকারী শীর্ষ ২০টি ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠকে বসে বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক আহমেদ জামালের নেতৃত্বে অগ্রণী, ব্যাংক এশিয়া, ব্র্যাক, জনতা, ন্যাশনাল, মার্কেন্টাইল এবং ইসলামী ব্যাংকসহ ২০ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের আলোচনা সম্পর্কে জানতে চাইলে অগ্রণী ব্যাংকের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, রেমিটেন্স ফি কমাতে ব্যাংকগুলোর করণীয় সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে। তবে এটি একটি প্রাথমিক আলোচনা। আগামী ২৪ জুলাই এ বিষয়ে চূড়ান্ত আলোচনা হবে। সেখানে রেমিটেন্স ফি কমানোর বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক আহমেদ জামালের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি। তবে গত মঙ্গলবার তিনি সাংবাদিকদের বলেছিলেন, অভ্যন্তরীণ চাহিদা তেজী রাখতে রেমিটেন্স গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক। সম্প্রতি রেমিটেন্স কমে যাওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক অস্বস্তিতে রয়েছে। রেমিটেন্স কমে যাওয়ার পেছনে তিনি উৎস দেশগুলোতে অর্থপাচার প্রতিরোধ সংক্রান্ত আইনের কঠোরতাকে প্রধান কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন।

তিনি জানান, ব্যাংকিং চ্যানেলে রেমিটেন্স পাঠানোর খরচ কমাতে রেমিটেন্স আহরণকারী শীর্ষ ২০ ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

রেমিটেন্স প্রবাহের নিম্নগতিতে দুঃচিন্তায় রয়েছে সরকারও। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেছেন, রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়াতে শিগগিরই ট্রান্সফার ফি কমানো হবে। যা আগামী মাস থেকে কার্যকর হতে পারে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, রেমিটেন্স পাঠানোর খরচ কমাতে সাবসিডি দেওয়ার চিন্তা করছে সরকার। এছাড়া রেমিটেন্স ফি কমাতে কী ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে সে বিষয়ে ব্যাংকগুলোর সঙ্গে আলোচনা চলছে।

প্রসঙ্গত, গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে প্রবাসী আয় কমেছে প্রায় সাড়ে ১৪ শতাংশ। এ অর্থবছরে ১ হাজার ২৭৬ কোটি ৯৪ লাখ ডলার রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশি প্রবাসীরা। আগের অর্থবছরে রেমিটেন্স আসে ১ হাজার ৪৯৩ কোটি ১১ লাখ ডলার। এ হিসেবে বছরের ব্যবধানে রেমিটেন্স প্রবাহ কমেছে ১৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত অর্থবছরের শুরু থেকেই রেমিটেন্স প্রবাহ নিম্মমুখী ছিল। অর্থসূচক

sentbe-top