Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

মার্কিন বোমারু বিমান থেকে জাহাজ বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা

b1কৌশলগত বোমারু বিমান বি-১বি ল্যান্সার থেকে জাহাজ বিধ্বংসী দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র (এলআরএএসএম) পরীক্ষা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়াতে পরমাণু বোমা বহনে সক্ষম এক বিমান থেকে ওই পরীক্ষা চালানো হয়। মার্কিন নৌ-বাহিনীর এক বিবৃতি থেকে এসব কথা জানা গেছে। পরীক্ষাকে সফল বলে দাবি করেছে তারা।

সম্প্রতি মার্কিন ঘাঁটিতে উত্তর কোরিয়ার হামলার হুমকির জবাবে এবার উত্তর কোরিয়াকে ‘ধুলায় মিশিয়ে দেওয়া’র হুমকি দেয় যুক্তরাষ্ট্র। চলতি মাসের ৯ তারিখে এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী ম্যাটিস পিয়ংইয়ংকে তাদের সশস্ত্র কর্মকাণ্ড স্থগিত রাখার আহ্বান জানান। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যখন টানাপড়েন তুঙ্গে তখন কৌশলগত ভারি বোমারু থেকে এ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল যুক্তরাষ্ট্র। নৌযুদ্ধে সম্ভাব্য শত্রুর বিরুদ্ধে কঠোর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে এ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে নৌবাহিনীর বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

বর্তমানে ব্যবহৃত জাহাজ বিধ্বংসী হারপুন ক্ষেপণাস্ত্রের পরিবর্তে মার্কিন নৌবাহিনী ব্যবহার করবে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র এলআরএএসএম। এটি রাডার ফাঁকি দিতে সক্ষম। কৌশলগত ভারি বোমারু বিমান বি-১বি থেকে এলআরএএসএম ছোঁড়াকে উল্লেখযোগ্য নতুন সাফল্য হিসেবে গণ্য করছে পেন্টাগন। মে মাসে এফ/এ-১৮ সুপার হরনেট থেকে পরীক্ষামূলক ভাবে এক হাজার পাউন্ড ওজনের এ ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছিল।

৯ আগস্টের বিবৃতিতে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্র দেশগুলোর সম্মিলিত সামরিক শক্তি এখন বিশ্বের যেকোনও ক্ষমতার তুলনায় আক্রমণ ও আত্মরক্ষার দিক থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী, সুশৃঙ্খল।’ সামরিক সক্ষমতায় উত্তর কোরিয়া কখনই যুক্তরাষ্ট্র ও এর মিত্রশক্তির সামনে দাঁড়াতে পারবে না বলেও বিবৃতিতে জানিয়েছেন ম্যাটিস।