sentbe-top

প্রবাসী থেকে ‘ইয়াবা পাচারকারী’

yeaba-arrestএকসময় মালয়শিয়ায় ছিলেন টেকনাফের জাফর আলম (৩১)। এরপর বেশি আয়ের আশায় দেশে ফেরত আসেন তিনি। যুক্ত হন ইয়াবা পাচারকারী চক্রের সঙ্গে। অল্প সময়ে বেশ কামিয়েও নিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। ধরা পরেছেন পুলিশের হাতে।

কর্ণফুলী থানাধীন মইজ্জারটেক এলাকা থেকে ৭৪ হাজার পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার জাফর আলম সম্পর্কে এভাবেই জানাচ্ছিলেন মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার (গোযেন্দা-বন্দর) মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ।

রোববার দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে কর্ণফুলী থানাধীন মইজ্জারটেক এলাকায় লেগুনা গাড়ি তল্লাশি করে ৭৪ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে মহানগর গোয়েন্দ‍া পুলিশ। গাড়ির সিটের উপরের অংশে বিশেষ কৌশলে লুকানো ছিল ইয়াবাগুলো।

মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, ‘গ্রেফতার হওয়া জাফর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, তিনি একসময় মালয়েশিয়ায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। এবার দেশে ফেরার পর বেশি আয়ের আশায় ইয়াবা পাচারকারী চক্রের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।’

‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মইজ্জারটেক এলাকার ক্যাফে আল মক্কার সামনের সড়কে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় একটি লেগুনা গাড়ির বসার সিটের উপরের অংশ; যেখানে মাথা রাখা হয় তার ফোমের ভেতর বিশেষ কৌশলে লুকিয়ে রাখা ইয়াবাগুলো উদ্ধার করা হয়। টেকনাফের হ্নীলা থেকে ইয়াবাগুলো পাচার করা হচ্ছিল।’

sentbe-top