sentbe-top

মাছির কারনে বিশ্ব রেকর্ড বানচাল!

machi
মাছি (প্রতীকী ছবি)
মাছির মতো ক্ষুদ্র একটি প্রাণীও হেলাফেলা করার মতো বিষয় নয়। কারণ, জার্মানিতে ২২ জনের একটি দলের বিশ্বরেকর্ড সৃষ্টির প্রচেষ্টা ‘একা হাতে’ বানচাল করে দিয়েছে ছোট্ট এক মাছি।

প্রতিযোগীরা এক টোকায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ডমিনো ফেলার বিশ্বরেকর্ড গড়তে চেয়েছিলেন। এতে একটার পর একটা ডমিনো টাইলস এমনভাবে দাঁড় করিয়ে রাখা হয় যাতে একটাতে টোকা দিলেই সেটা পরের ডমিনো টাইলসের উপর গিয়ে পড়ে, পরেরটা আবার পড়ে তার পরেরটার উপর। এভাবে একটা চেইন রিয়েকশন সৃষ্টির মাধ্যমে একটার পর একটা সাজিয়ে রাখা সবগুলো ডমিনো টাইলস এক টোকায় ফেলে দেওয়া হয়।

যাইহোক, প্রতিযোগীরা ছোট ছোট ডমিনো টাইলস সাজিয়ে রাখার একপর্যায়ে একটা মাছি গিয়ে বসে একটা ডমিনোর উপর। ব্যাস, সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে যায় চেইন রিঅ্যাকশন। মাছির ‘এক ধাক্কায়’ সাজিয়ে রাখা সবগুলো ডমিনো যায় পড়ে, ‘বানচাল’ হয় বিশ্বররেকর্ড।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, গত ৩ আগস্ট ‘সিনার ডমিনো এন্টারটেইনমেন্ট’ আয়োজিত ১০ম ‘ডমিনো ডে’ অনুষ্ঠানে এ ‘দুর্ঘটনা’ ঘটে। বলা হয়, এই ডমিনোগুলো গতানুগতিকের তুলনায় ৮০ গুণ ছোট এবং ১০০ গুণ বেশি হালকা। এগুলো সাজাতে ব্যবহার করতে হয় চিমটা।

আয়োজকদের একজন প্যাট্রিক সিনার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, প্রস্তুতি সমাপ্ত হওয়ার আগেই একটি মাছির কারণে চেইন রিঅ্যাকশন শুরু হয়ে যায়। এতগুলো ডমিনো আবার নতুন করে সাজানোর আর সময় ছিল না।

মজার ব্যাপার, এই প্রতিযোগীরা নিজেদের গড়া বিশ্ব রেকর্ডই ভাঙার প্রচেষ্টায় ছিলেন। ২০১৩ সালে ২০০০ মিনি ডমিনো ফেলে গিনেজ বুকে নাম লেখায় এই ‘সিনার ডমিনো এন্টারটেইনমেন্ট’ নামে দলটি।

তবে তাদের প্রচেষ্টা একেবারে বৃথা যায়নি। এবারে অন্য চারটি বিশ্ব রেকর্ড ঠিকই ভেঙেছেন তারা। গড়েছেন বিশ্বের দীর্ঘতম ডমিনো চেইন রিঅ্যাকশন, ডমিনোর দীর্ঘতম দেয়াল, বৃহত্তম স্পাইরাল এবং ডমিনোর বৃহত্তম কিউব তৈরির রেকর্ড।

সৌজন্যে- বাংলানিউজ

sentbe-top