sentbe-top

১৮ সেপ্টেম্বর উত্তর কোরিয়া যাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট মুন

kim-moon

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ প্রক্রিয়াকে আরও ত্বরান্বিত করতে এবার সম্মেলন করার জন্য রাজি হয়েছে উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়া। বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কোরিয়া সরকারের জ্যেষ্ঠ এক মুখপাত্র এ সম্মেলনের কথা জানিয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে রয়টার্স।

খবরটিতে বলা হয়, আগামী ১৮ থেক ২০ সেপ্টেম্বর উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিংইয়ংএ পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ব্যবহারিক উপায় বের করার জন্য একটি সম্মেলন আয়োজনে উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়া উভয় দেশই রাজি হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা চুং ইউই ইয়ং জানান, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ব্যাপারে আবারও তার সম্মতি জানিয়েছেন। এছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ার এবং যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সুসম্পর্ক এবং সহযোগিতা স্থাপনের ইচ্ছা তিনি জানিয়েছেন।

কিমের সাথে বৈঠকের পর দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারি কর্মকর্তা চুং আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপর কিমের আস্থা এখনও অপরিবর্তিত রয়েছে এবং তিনি পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তার শত্রুভাবাপন্ন সম্পর্ক শেষ করতে চান।

sentbe-adচুং জানিয়েছেন, কিছু আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তার পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে সন্দেহ করায় কিম হতাশা প্রকাশ করেছেন। উত্তর কোরিয়া স্বেচ্ছায় পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে কার্যক্রম এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এবং কিম বলেছে ভালো বিশ্বাস এবং ভরসাকে তিনি সবসময় প্রশংসা করবেন।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে ইন তার কর্মকর্তাদের পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ সম্মেলনের দিন তারিখ এবং আলোচ্যসূচি নির্ধারণ করার জন্য বুধবার উত্তর কোরিয়া পাঠান। এর আগে জুলাইতে কিম ট্রাম্পের মধ্যে বৈঠকে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা হয়। কিন্তু গতমাসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও উত্তর কোরিয়া সফর বাতিল করার পর কিছু আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এবং সংস্থা উত্তর কোরিয়ার পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের পরিকল্পনা ভেস্তে গিয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করে।

sentbe-top