cosmetics-ad

যুক্তরাষ্ট্র থেকে ৩০ কোটি ডলারের মিসাইল কিনছে দক্ষিণ কোরিয়া

military-drills-us-korea


উত্তর কোরিয়ার বিমান বাহিনীর সঙ্গে পাল্লা দিতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে মিসাইল কিনতে ৩০ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটি তার বিমান বাহিনীকে শক্তিশালী এ পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। মূলত পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে উত্তেজনা কমাতে এ মিসাইল কেনা হচ্ছে বলে জানা যায়। শুক্রবার সিউলে অস্ত্র বিক্রেতার এক প্রতিনিধি এ খবর জানিয়েছে।

২০১৩ সালে রেইথিয়ন কোম্পানির কাছ থেকে স্ট্যান্ডার্ড মিসাইল-২ কিনেছিল দক্ষিণ কোরিয়া। এছাড়া কিস্তিতে ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে তিনটি এজিজ ধ্বংসকারীও স্থাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রগুলো শনাক্ত ও নির্দিষ্ট করার ক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। যদিও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিবেশী দেশ উত্তর কোরিয়া আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে দেশটির পারমাণবিক কর্মসূচি যুক্তরাষ্ট্রকে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছিল।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ কার্যক্রম প্রশাসনের (ডিএপিএ) এক কর্মকর্তা বলেছেন, সাম্প্রতিক মিসাইল ক্রয়ের প্রতিরক্ষা কমিটি চূড়ান্ত সরবরাহ গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে ওই কর্মকর্তা নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে ক্রয়কৃত মিসাইলের সংখ্যা বলে রাজি হননি। তবে তিনি বলেন, মিসাইলের সংখ্যা অনেকগুলো হবে যার মূল্য প্রায় ৩০ কোটি ডলার হতে পারে। যদিও এ কর্মকর্তা তার পরিচয় দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। কারণ এ কর্মকর্তা জনসম্মুখে এ চুক্তি বিষয়ে বলার জন্য অনুমোদিত ছিলেন না।

উল্লেখ্য, এ বছর উত্তর কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার পুনরায় পুনর্মিলনের প্রচেষ্টায়, প্রতিবেশী দেশগুলো উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে এক শীর্ষ সম্মেলনে বিস্তৃত সামরিক চুক্তি করে। যার লক্ষ্য ছিল উত্তর কোরিয়ার বিশাল বিশাল শক্তিশালী সীমান্তে সামরিক চাপ সৃষ্টি করা। কিন্তু দক্ষিণ কোরিয়া তার বিমান বাহিনীকে ক্রমেই শক্তিশালী করে যাচ্ছে। যার ধারাবাহিকতায় তারা ইসরাইলের কাছ থেকে দুটি রাডার কেনারও সিদ্ধান্ত নেয়। এছাড়া গত সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ কোরিয়ার কাছ অস্ত্র বিক্রি করতে অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সূত্রঃ ইত্তেফাক।