cosmetics-ad

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল বিশ্বের সপ্তম ব্যয়বহুল শহর

seoul

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল এই বছর বিশ্বের সপ্তম সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর হিসাবে স্থান পেয়েছে, গত শনিবার একটি জরিপ এই তথ্য জানিয়েছে।

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় যুগ্মভাবে শীর্ষে রয়েছে প্যারিস, হংকং ও সিঙ্গাপুর। ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের বার্ষিক জরিপের ৩০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম তিনটি শহর শীর্ষ স্থান দখল করল। বৈশ্বিকভাবে ১৩৩টি শহরের ওপর জরিপ চালিয়ে এ প্রতিবেদনটি প্রস্তুত করা হয়েছে।

গত বছর বিশ্বের দ্বিতীয় ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় ছিল ফ্রান্সের রাজধানীটি। ইউরোজোনের একমাত্র শহর হিসেবে শীর্ষ ১০ ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় ছিল প্যারিস। জরিপে রুটি থেকে শুরু করে চুল কাটার খরচের মতো বিভিন্ন সাধারণ আইটেমের দাম বিবেচনা করা হয়েছে। বিশ্বের ১৩৩টি শহরে ১৫০টি পণ্যের দাম বিচার করা হয়েছে। নিউইয়র্ক শহরকে বেঞ্চমার্ক ধরে বিভিন্ন পণ্যের দামের ওঠানামা বিবেচনা করা হয়েছে।

চুল কাটার খরচ

প্রতিবেদনটির মূল লেখক রোক্সানা স্ল্যাভচেভা বলেন, ২০০৩ সাল থেকে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ১০ শহরের তালিকায় রয়েছে প্যারিস, কারণ সেখানে ‘জীবনযাত্রার ব্যয় অনেক বেশি’। প্যারিসে নারীদের চুল কাটার গড় খরচ ১১৯ দশমিক শূন্য ৪ ডলার, যেখানে জার্মানির জুরিখে ৭৩ দশমিক ৯২ ও জাপানের ওসাকায় ৫৩ দশমিক ৪৬ ডলার।

স্ল্যাভচেভা বলেন, ইউরোপীয় শহরগুলোয় গৃহস্থালি, ব্যক্তিগত যত্ন, অবকাশ ও বিনোদন খাতে ব্যয় অত্যধিক বেশি। এসব খাতে প্যারিস একটি আদর্শ উদাহরণ। শীর্ষ ১০ ব্যয়বহুল দেশের তালিকায় এশীয় ও ইউরোপীয় শহরগুলোরই প্রাধান্য লক্ষ করা গেছে। শীর্ষ দশে উত্তর আমেরিকা থেকে কেবল যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ও লস অ্যাঞ্জেলেসই জায়গা পেয়েছে।

২০১৪ সালের পর থেকে টোকিওকে হটিয়ে সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে সিঙ্গাপুর। জাপানের রাজধানী শহরটি ১৯৯২ সালের পর থেকে প্রায় প্রতিবারই শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছিল।

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকা করতে আর কী কী বিষয় বিবেচনা করা হয়েছে, সে বিষয়গুলোয় চোখ বোলানোর আগে চলুন একঝলক দেখে নিই কারা আছে এ তালিকায়:

১. সিঙ্গাপুর সিটি (সিঙ্গাপুর)

১. প্যারিস (ফ্রান্স)

১. হংকং

৪. জুরিখ (সুইজারল্যান্ড)

৫. জেনেভা (সুইজারল্যান্ড)

৫. ওসাকা (জাপান)

৭. সিউল (দক্ষিণ কোরিয়া)

৭. কোপেনহেগেন (ডেনমার্ক)

৭. নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র)

১০. তেল আবিব (ইসরায়েল)

১০. লস অ্যাঞ্জেলেস (যুক্তরাষ্ট্র)

মূল্যস্ফীতি ও অস্থিতিশীল মুদ্রাবাজারের কারণে চলতি বছরের র্যাংকিং পরিবর্তনে প্রভাব পড়েছে। আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, তুরস্ক ও ভেনিজুয়েলায় জীবনযাত্রার ব্যয় লক্ষণীয়ভাবে হ্রাস পেয়েছে।

সবচেয়ে কম ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে ভেনিজুয়েলার রাজধানী কারাকাস। ১০ লাখ শতাংশ মূল্যস্ফীতির মুখোমুখি হওয়ায় গত বছর দেশটির সরকার নতুন একটি মুদ্রা চালু করতে বাধ্য হয়েছিল। বিশ্বের সবচেয়ে কম ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক।

এবার দেখা যাক, সবচেয়ে কম ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় রয়েছে কোন দেশগুলো:

১. কারাকাস (ভেনিজুয়েলা)

২. দামেস্ক (সিরিয়া)

৩. তাশখন্দ (উজবেকিস্তান)

৪. আলমাটি (কাজাখস্তান)

৫. বেঙ্গালুরু (ভারত)

৬. করাচি (পাকিস্তান)

৬. লাগোস (নাইজেরিয়া)

৭. বুয়েন্স আয়ার্স (আর্জেন্টিনা)

৭. চেন্নাই (ভারত)

৮. নয়াদিল্লি (ভারত)

সূত্র: বিবিসি ও সিএনএন।