Search
Close this search box.
Search
Close this search box.

বাংলাদেশি স্টার্টআপ তৈরিতে সহায়তা করবে দক্ষিণ কোরিয়া

Korean-embassador
অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বাংলাদেশে স্টার্ট-আপ তৈরিতে সাহায্য করার মাধ্যমে উন্নয়নে অবদান রাখতে চায় দক্ষিণ কোরিয়া।

chardike-ad

রবিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার একটি হোটেলে বাংলাদেশি স্টার্টআপ কোম্পানিগুলোর সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা বলেন কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত লি জ্যাং-কিউন।

তিনি বলেন, ‘আমরা ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার যাত্রার অংশীদার হতে চাই। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের আগে তরুণ উদ্যোক্তারা ভবিষ্যৎ অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখবে।’

বাংলাদেশে কোরিয়ার দূতাবাস ও আইসিটি বিভাগের ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমির (iDEA Project) আইডিয়াথন প্রোগ্রামে বিজয়ী দক্ষিণ কোরিয়ায় ইনকিউবেশন প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারী স্থানীয় স্টার্টআপ কোম্পানিগুলোর সঙ্গে মতবিনিময় করতে আইসিটি বিভাগের সহযোগিতায় এই সভার আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আইসিটি বিভাগের যুগ্ম সচিব, ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমি (iDEA Project)-এর প্রোজেক্ট ডিরেক্টর জনাব আলতাফ হোসেন, দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত জনাব লি জ্যাং-কিউন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, কোইকা কান্ট্রি ডিরেক্টর আন ইয়াং দো, আইডিয়া প্রজেক্ট কনসালটেন্ট দেওয়ান আদনান ও আইডিয়াথন প্রোগ্রামের বাংলাদেশ কোরিয়া কোঅরডিনেটর তালহা ট্রেনিং এলএলসি-এর সিইও শফিউল আলম ও তালহা ট্রেনিং এলএলসি-এর ডিরেক্টর তানিয়া তাহরিমা চৌধুরী।

আইডিয়া প্রোজেক্ট ডিরেক্টর জনাব আলতাফ হোসেন বলেন, ‘স্টার্টআপদের বাংলাদেশের এসডিজি গোলের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। এসডিজি গোল পূর্ণ করতে অবদান রাখার মাধ্যমে ভিশন ২০৪১ অংশীদার হতে স্টার্টআপদের অনুরোধ করেন তিনি।

আইডিয়াথন সিজন-১-এর বিষয়টি সামনে এনে, কোরিয়ান রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ ও দক্ষিণ কোরিয়ার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক প্রায় ৫০ বছরের কাছাকাছি। আমরা এই সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করার জন্য সকল সুযোগ কাজে লাগাতে চাই। তিনি আইডিয়াথন সিজন-২ খুব দ্রুত শুরু হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি তরুণদের প্রযুক্তি-ভিত্তিক উদ্যোক্তায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

স্টার্টআপগুলোর পক্ষে, এএনটিটি রোবটিক্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা তাজিদ ইবানে রউফ উদয় ও রফিদ উদ্দিন ভূঁইয়া নেহাল, রক্ষী লিমিটেডের সহ-প্রতিষ্ঠাতা আবরার মাসুম ও আহমেদ ইস্তিয়াক, চার ছক্কার সহ-প্রতিষ্ঠাতা নওরিন হক রিদি ও রুকশার আলম, কৃষিয়ান এর আহসান আহমেদ মল্লিক এবং মামুনুর রহমান ও ছবির বাক্সর ইমতিয়াজ আহমেদ ও নূর আল দীন আহমেদ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

আইডিয়াথন সিজন-১বিজয়ী পাঁচটি স্টার্টআপ ৩৫০০ প্লাস আবেদনের মধ্যে আইডিয়াথন প্রতিযোগিতায় জয়ী হয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় ছয় মাসের ইনকিউবেশন পেয়েছে। তারা এই প্রোগ্রামের আওতায়, আইডিয়া প্রস্তুতকরণ, প্রোজেক্ট প্রটোটাইপ, বিজনেস ট্রেনিং, বি.টু.বি কোলবোরেশন, বিজনেস নেটওয়ার্কিং, আন্তর্জাতিক পেটেন্ট, কপিরাইট এবং ট্রেডমার্কে সহায়তা পেয়েছে।