cosmetics-ad

মায়ের পা ধুইয়ে শিশুদের ভালোবাসা দিবস উদযাপন

vallentine-day

টাঙ্গাইলে মায়েদের পা ধুয়ে ভালোবাসা দিবস পালন করল শতাধিক শিশু। বৃহস্পতিবার সকালে হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুল মায়েদের পা ধুয়ে ভালোবাসার প্রকাশ ঘটানোর এই আয়োজন করেছিল। শহরের এসপি পার্কে আয়োজিত অনুষ্ঠানে শতাধিক মাকে তার সন্তানরা পা ধুয়ে দেয়। পরে মায়ের জন্য ভালোবাসা স্লোগান দিয়ে মায়ের গলায় মেডেল পরিয়ে দেয় সন্তানরা।

এ অনুষ্ঠানে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, নিজের রক্ত দিয়ে মা তার সন্তানকে জন্ম দেন। ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরে তাকে অতিযত্নে ও আদর স্নেহে বড় করে তোলেন। তাই পৃথিবীতে মা ও সন্তানের ভালোবাসার সমতুল্য অন্য কারো ভালোবাসা হতে পারে না।

হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুলের উপদেষ্টা জাফর আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও তথ্যপ্রযুক্তি) মো. সেলিম আহমদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. আহাদুজ্জামান মিয়া, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, লায়লা খানম, জেলা তথ্য কর্মকর্তা কাজী গোলাম আহাদ।

মায়ের পা ধুয়ে দেয়ার পর শিশু রিয়া আক্তার জানায়, আমার মায়ের মা ধুয়ে দেয়ার পর আমার খুব ভালো লাগছে। আমি আমার মাকে খুব ভালোবাসি।

শিক্ষার্থী আসিব খান জানায়, বাবা-মাকে আমি অনেক ভালোবাসি। ভালোবাসা দিবসে আমি মায়ের মা ধুয়ে দিয়েছি। আমি সারাজীবন বাবা-মাকে ভালোবাসব।

অবিভাবক শারমিন আক্তার বলেন, এই অনুষ্ঠানে এসে আমার খুব ভালো লাগছে। নিজের সন্তার আমার পা ধুয়ে দিয়ে আমার প্রতি সম্মান দেখিয়েছে। আমি চাই প্রতিটি সন্তান তার মা-বাবাকে এভাবেই সম্মান করুক।

হাতেখড়ি প্রি-প্রাইমারি স্কুলের চেয়ারম্যান নওশাদ রানা জানান, ভালোবাসা দিবসে ভালোবাসা শুধু প্রেমিক যুগলের মধ্যে বিনিময় হবে তা নয়। ভিন্ন আঙ্গিকে প্রতিবছর ১৪ ফেব্রুয়ারি মায়েদের সম্মানে পা ধোয়ার অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ছোটবেলা থেকেই প্রত্যেকটি ছেলেমেয়ে যাতে মা বাবাকে সম্মান করে। এ লক্ষ্যেই এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সৌজন্যে- যুগান্তর