sentbe-top

দক্ষিণ কোরিয়া থেকে হাসপাতাল নির্মাণের পণ্য কিনছে সরকার

kamal
ফাইল ছবি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) অধীনে সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল স্থাপনের জন্য দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ২৭৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকার বিভিন্ন পণ্য আনছে সরকার। কোরিয়ার ফান্ডের আওতায় মেডিকেল ইকুইপমেন্ট অ্যান্ড হাসপাতাল ইনফরমেশনসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য আনা হচ্ছে।

বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ-সংক্রান্ত একটি ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদেন দেয়া হয়েছে। কমিটির আহ্বায়ক অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এতে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান অর্থমন্ত্রী। তিনি বলেন, কোরিয়া পণ্যের মান ভালো। এ জন্য কোরিয়া থেকে আনছি। তাছাড়া কোরিয়ার ফান্ডেই এটি নির্মিত হচ্ছে। কোরিয়ার ঋণে খুব কম সুদহার। এক্ষেত্রে সুদহার মাত্র দশমিক শূন্য এক শতাংশ। এক্ষেত্রে গ্রেস পিরিয়ডও বেশি।

বৈঠকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়, খুলনা কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন খুলনা শহরে অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কনভেনশন সেন্টার নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১১৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা। প্রকল্পের আওতায় দুইতলা বেজমেন্টসহ ১৫তলা ভবন ও শহরে কনভেনশন সেন্টার নির্মাণ করা হবে।

আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে আহুত প্যাকেজ-৮ এর আওতায় ৫০ হাজার মেট্রিকটন গম ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয় বৈঠকে। অস্ট্রেলিয়ার কোম্পানি জেকে ইন্টারন্যাশনাল থেকে ২৭১.৭৫ মার্কিন ডলার প্রতি মেট্রিকটন দামে এ গম কেনা হবে। প্রতি কেজি ২২.৮২ টাকা। এতে ব্যয় হবে ১১৪ কোটি ১৩ লাখ টাকা।

সভায় অনুমোদিত অন্যান্য প্রকল্পগুলো হলো- পরিবার পরিকল্পনা কর্মসূচির জন্য চতুর্থ স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেক্টর কর্মসূচির আওতায় ১০০ মিলিয়ন চক্র স্বল্পমাত্রার জন্মনিয়ন্ত্রণ খাবার বড়ি ক্রয় করা হবে। ব্যয় হবে ১১০ কোটি টাকা।

এছাড়া জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের চারটি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। রূপকল্প-১ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় শ্রীকাইল ইস্ট-০১ এর তিনটি প্রস্তাবে কূপ খনন এলাকায় অস্থায়ী শ্রমিক ও আনসার ক্যাম্প এবং কেমিক্যালস সংরক্ষণের জন্য দুইটি গোডাউন নির্মাণ, অনুসন্ধান কূপ খনন ড্রিল সিস্টেম টেস্টিং ও ওয়ার লাইন লোগিং সার্ভিস সেবা গ্রহণের প্রস্তাব অনুমোদন। তিনটি প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

রূপকল্প-২ শীর্ষক প্রকল্পের অধীন জকিগঞ্জ-১ কূপ খনন কাজে নিয়োজিত অস্থায়ী শ্রমিক ও আনসারদের জন্য আবাসিক ক্যাম্প নির্মাণ, নিরাপত্তা বেষ্টনী, চৌকি, কেমিক্যাল গোডাউন নির্মাণকাজের ক্রয়প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে দুই কোটি ২৪ লাখ টাকা।

এর আগে অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে দেশে ইউরিয়া সারের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে সৌদির বিসিক ইন্ডিস্ট্রিজ কর্পোরেশন (সাবিসি) থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিকটন ইউরিয়া সার আমদানির প্রস্তাব নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

সৌজন্যে- জাগো নিউজ

sentbe-top