cosmetics-ad

চীনের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে মহাবিপদে উত্তর কোরিয়া

kim
ফাইল ছবি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘদিনের অবরোধে বিপর্যস্ত উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতি। দেশটির প্রধানতম অর্থনৈতিক সহযোগী রাষ্ট্র হচ্ছে প্রতিবেশী কমিউনিস্ট রাষ্ট্র চীন। উত্তর কোরিয়ার অর্থনীতি পুরোপুরি চীননির্ভর হয়ে পড়েছে গত কয়েক বছরে। কিন্তু নতুন করে শুরু হয়েছে আরেকটি সংকট। করোনা ভাইরাসের বিস্তার থামাতে বন্ধ করে দিতে হয়েছে চীনের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ আদান-প্রদান। বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে সীমান্তও।

সমগ্র বিশ্ব থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন উত্তর কোরিয়া। একমাত্র চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে রয়েছে ট্রেন ও বিমান যোগাযোগ। তবে করোনাভাইরাস বিস্তার লাভ করার পর দেশটি চীনের সঙ্গে সকল বিমান ও ট্রেন সেবা বন্ধ ঘোষণা করেছে। আন্তর্জাতিক পর্যটনও সাময়িক বাতিল করা হয়েছে। আন্তঃসীমান্ত ভ্রমণও পুরোপুরি নিষিদ্ধ এখন উত্তর কোরিয়ায়। ফলে এখন বলতে গেলে উত্তর কোরিয়া একেবারেই বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে।

দেশটির প্রেসিডেন্ট কিম জং উন অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেও অর্থনীতি সচল রেখেছেন তিনি। তবে চীনের সঙ্গেও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর তার এই চেষ্টা বাধাগ্রস্ত হবে। উত্তর কোরিয়া সীমান্তে কর্মরত চীনা সূত্র জানিয়েছে, দেশটি এখন কোনো কার্গো ঢুকতে দিচ্ছে না এবং চীনা নাগরিকদেরও বের করে দিচ্ছে। এখন সেখানে কেউ যেতেও পারে না, ফিরতেও পারে না। দক্ষিণ কোরিয়া সূত্রও জানিয়েছে, গত ৩০শে ডিসেম্বর থেকে উত্তর কোরিয়া সকল সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে।