cosmetics-ad

ইতালিতে করোনায় মৃত ২১, বাংলাদেশ দূতাবাসের জরুরি বিজ্ঞপ্তি

italy-corona

দিনেদিনে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়েই চলেছে। সারা বিশ্বে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসগুলো প্রবাসীদের সতর্ক থাকতে জরুরি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করছে। ইতালির রোমে বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিলান কনস্যুলেট জরুরি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

এখন পর্যন্ত ইতালিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২১ জন, আক্রান্ত হয়েছে ৮৮৮ জনের মতো। এ ছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ায় এ ভাইরাসে ৩১৫০ জন আক্রান্ত হয়েছে, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে অথবা সন্দেহ করলেই রোম দূতাবাসের হেল্প ডেক্স ৩৩৩ ৭৪৪ ১৬৯০, ৩৮৯ ৪৭৫ ৬৯০২ নম্বরে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যদিকে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল মিলান ২১৯ ৪৩০৫ ও ৩২০ ২২৪ ৪৮২৯ এ যোগাযোগের জন্য বলা হয়েছে।

ইতালির উত্তরাঞ্চলগুলোতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর খবর দূতাবাস অবগত রয়েছে বলে জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। তাই প্রবাসী বাংলাদেশিদের যেকোনো সমস্যা সমাধানের জন্য দূতাবাস প্রস্তুত রয়েছে।

এ ছাড়াও বাংলাদেশিদের আতঙ্কিত না হয়ে ধৈর্য ধরে পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে অনুরোধ করা হয়েছে। পাশাপাশি বাহিরে চলাফেরার ক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহারসহ গণপরিবহন এড়িয়ে চলতে অনুরোধ করা হয়েছে।

দূতাবাস কোনোরকম বন্ধ না রাখার নির্দেশনা আসেনি এমন কথাও জানানো হয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে। সেবা কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। যারা সেবা নিতে আসছেন, তাদেরকে সতর্কীকরণ বার্তা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের উপসর্গ অনুভব করলেই ইতালিয়া টোল ফ্রি নম্বর ১৫০০ ও ১১২ নম্বরে দ্রুত যোগাযোগ করতে আহ্বান করা হয়েছে।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানিয়েছে, শনিবার দেশটিতে করোনাআক্রান্ত ৪৭ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে দুটি বাদে সবগুলোই ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হুবেই প্রদেশের। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৮৩৫ জন। চীনে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪২৭ জন, এর মধ্যে প্রায় সবই হুবেইয়ে। দেশটিতে এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৯ হাজার ২৫১ জন।

চীনা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত ভাইরাস আক্রান্ত ৩৯ হাজার ২ জনকে তারা চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে তুলেছেন। বিশ্বের অন্তত ৫৪টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। চীনের মূল ভূখণ্ডের বাইরে অন্তত ৮৭ জন কোভিড-১৯ রোগী মারা গেছেন।