cosmetics-ad

লন্ডনে লকডাউনে পান কিনতে বাংলাদেশিদের হাতাহাতি

london

পান-সুপারি অতিথি পরায়ণে বাংলাদেশের মানুষের অন্যতম একটি অনুষঙ্গ। সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বাঙালিরা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে পাড়ি জমালেও পান-সুপারির কদর তাদের কাছে একদম কমেনি। বরং বনেদি ছোঁয়ায় নিজ আভিজাত্যে আরও জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে রসালো এই পণ্য।

লন্ডনের বাঙালি পাড়ায়ও রয়েছে পানের ব্যাপক চাহিদা, সেখানে বাংলাদেশিদের অনেক দোকানও আছে। দোকানগুলোতে হরহামেশায় পান বিক্রি করতে দেখা যায়। এবার লকডাউনের মধ্যে পান কিনতে গিয়ে লাইনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশিদের মধ্যে হাতাহাতির খবর পাওয়া গেছে।

এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা যায় পান কিনতে গিয়ে লাইনে দাঁড়ানোকে কেন্দ্র করে মানুষের হাতাহাতি দীর্ঘ লাইন যেখানে মানছে না ২ মিটারের সামাজিক দূরত্বের বিধান।

এ নিয়ে ফেসবুকে অনেককে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে দেখা যায়। আব্দুল হান্নান নামে একজন লিখেছেন ‘পান নিয়ে মারামারি, লন্ডনে ৫টা পান ১ পাউন্ড। দোকানে যে লম্বা লাইন (নো সোশ্যাল ডিসটেন্স) এ দুর্যোগে ভাত না খেয়ে পাতা খেয়ে বেঁচে আছি। পানের কাছে করোনার পরাজয়।বাঙালি বলে কথা’।

জানা গেছে, লকডাউনে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই যুক্তরাজ্যে পান আসা বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে পানের সঙ্কট দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় বেকায়দায় পড়েছে লন্ডনের পান-পিপাসু বাংলাদেশিরা। প্রতিদিন এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ঘুরছেন পানের জন্য। কিন্ত কোথাও না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরতে হয়েছে তাদের।

এমন পরিস্থিতে বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) লন্ডন শহরের শেডওয়েল কাঁচা বাজার নামক দোকানে পান আসার খবর চারদিকে ছাড়িয়ে পড়ে। মুহূর্তের মধ্যে দোকানে মানুষের ভিড় লেগে যায়। করোনাভাইরাস, লকডাউন কোনোকিছুই মানুষকে পান কেনা থেকে আটকাতে পারেনি। সকাল থেকে দীর্ঘ লাইনে বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় পানের জন্য।

শেডওয়েলে খাদ্য সামগ্রী কেনার জন্য বিপুল সংখ্যক লোকের লাইন এবং দোকানে ঢোকার জন্য বাইরে অপেক্ষার সময় সোশ্যাল ডিসটেন্সিং বা সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখার প্রবণতা দেখে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

কাউন্সিল থেকে পাঠানো এক চিঠিতে বাসিন্দাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ করে বলেছে, অনুগ্রহ করে যতটা সম্ভব কম ঘরের বাইরে বের হন এবং সর্বদা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।

এদিকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে পান না পেয়ে অনেক মানুষ হতাশ হয়ে ফিরেছেন বাড়িতে। অনেকে আবার ফেসবুকে পান কোথায় পাওয়া যাবে তথ্য দিতে অনুরোধ করেছেন পরিচিতজনদের কাছে। সালাম নামে এক বাংলাদেশি পানের জন্য ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে তথ্য দিতে অনুরোধ করেছেন। আজ থেকে অনেকে পান দেবেন বলেও জানিয়েছেন।