sentbe-top

প্রেসক্লাবেই অবস্থান মির্জা ফখরুলের

fakrulবিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবেই অবস্থান করেন। সোমবার বিকেল থেকে তাকে জাতীয় প্রেসক্লাবে অবরুদ্ধ করে রেখেছে পুলিশ।

প্রেসক্লাব থেকে বের হলেই তাকে গ্রেফতার করা হতে পারে- এমন আশঙ্কায় তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ফখরুল ইসলাম ছাড়াও জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানসহ ২০ দলীয় জোটের আরো কিছু নেতা তার সঙ্গে রয়েছেন। এ ছাড়া বিএনপিপন্থী বেশ কয়েকজন সিনিয়র সাংবাদিকও সেখানে অবস্থান করছেন।

সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী পেশাজীবী সংগঠনের কর্মসূচিতে অংশ নিতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জাতীয় প্রেসক্লাবে যান এবং তারপর থেকে তিনি প্রেসক্লাবের ভবনের দ্বিতীয়তলায় অবস্থান করছেন।

পেশাজীবীদের অনুষ্ঠানের সময়ে প্রেসক্লাব চত্বরে আওয়ামীপন্থী সাংবাদিকদের একটি অনুষ্ঠান চলছিল। আর ফখরুলের অনুষ্ঠানটি ছিল ভেতরে। মির্জা ফখরুল প্রেসক্লাবে যাওয়ার পরপরই উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। দুই পক্ষের সাংবাদিক ও রাজনৈতিক কর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনাও ঘটে। এই মারামারিতে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ প্রেসক্লাবে এই মারামারিতে অংশ নেয়। এই নিয়ে গোটা প্রেসক্লাব ও আশপাশের এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এরপর আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ নামের সংগঠনের নেতা-কর্মীরা প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নেয়। পাশাপশি বিকেল থেকেই জাতীয় প্রেসক্লাবের তিনটি গেইটে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী অবস্থান করছে। সন্ধ্যার পর থেকে প্রেসক্লাবের তিন গেটে ডিবি পুলিশের তিনটি টিম অবস্থান নেয়। পাশাপাশি সাদা পোশাকেও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য রয়েছেন। এ কারণে ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রেসক্লাব থেকে আর বাইরে বের হতে পারেননি।

 

sentbe-top