cosmetics-ad

যমজ সন্তানের কারখানা কোধিনি গ্রাম

twice-child

গ্রামের নাম ‘কোধিনি’। কেরলের মালাপ্পুরম জেলার এই গ্রামটি এখন যমজের গ্রাম নামেই পরিচিত। যে কোনোদিকে তাকালে চোখে পড়বে জোড়ায় জোড়ায় একই রকম ব্যক্তি। এই গ্রামটি ভারত তথা বিশ্বের এক বিস্ময়কর গ্রাম। কারণ এখানেই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি যমজের বাস।

সর্বশেষ পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, মুসলিম অধু্যষিত এই গ্রামের মোট ২ হাজার বাসিন্দার মধ্যে ২২০ জোড়া যমজের বাস। যেখানে সমগ্র বিশ্বে গড়ে এক হাজার যমজ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, সেখানে কোধিনিতেই যমজের হার ৪২ শতাংশ।

গ্রামটি তিন দিক দিয়ে পানিবেষ্টিত এবং সবুজে ঘেরা এই গ্রামটিতে এখানকার বেশিরভাগ বাসিন্দা মুসলমান। বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ থেকে ভারতে যমজ জন্মানোর রেকর্ড কম, কিন্তু এই কোধিনি বাকি সব অঞ্চলকে ছাপিয়ে গেছে। কোধিনি গ্রামে সব ধরনের যমজ দেখতে পাওয়া যায়। সাধারণ যমজ বা নন-আইডেনটিক্যাল টুইন এবং হুবহু একই রকম দেখতে আইডেটিক্যাল টুইন। আবার দুইটি যমজ ভাই বোনের দেখাও পাওয়া যায় এখানে। কিন্তু এই গ্রামে যমজের সংখ্যা এত বেশি কেন? তা নিয়ে স্থানীয়দের ধারণা অনেকটা এ রকম যে, ১৯৪৯ সালে এখানে প্রথম যমজ শিশু জন্মগ্রহণ করেছে। এরপর থেকে প্রতি বছরই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এই সংখ্যা। কারও কারও মতে এ গ্রামের পরিবেশ এবং জিনগত কারণে এই ঘটনা ঘটেছে। কেবলমাত্র এই গ্রামেই নয়, গ্রামের যেসব মেয়ের বাইরে বিয়ে হয়েছে, সেখানেও তারা যমজ সন্তান জন্ম দিয়েছেন।

স্বভাবতঃই কোধিনি গ্রামের এই অদ্ভুত ঘটনায় বিভ্রান্তিতে পড়তে হয় সবাইকে। কারণ অনেক সময় একই চেহারার দুইজন মানুষকে তারা নিজেরাই আলাদা করতে পারেন না।(প্রতিক্ষণ)