sentbe-top

আমেরিকায় মুসলিম নারীর মহানুভবতা

american-muslim-womenইসলাম শান্তি ও উদারতার এক মূর্তপ্রতীক। সম্প্রতি বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এ রকম একটি ঘটনা ঘটেছে, যা আমেরিকার ডাকোটা প্রদেশের ফার্গো শহরের পুলিশ প্রধান ডেভিড টড তার ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজে তুলে ধরেছেন।

সম্প্রতি আমেরিকার একটি গাড়ি পার্কিংয়ে দুই সোমালিয়ান বংশোদ্ভূত আমেরিকান মুসলিম নারীকে অপমান করার অপরাধে অ্যাম্বার হ্যান্সেলি নামে ইসলামবিদ্বেষী এক নারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। ওই নারী গাড়ি পার্কিংয়ে মুসলিম নারীদের অপমান করে এবং হত্যার হুমকি দেয়।

মুসলিম নারীদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করার কারণে ফারগো অ্যাকাউন্টিং ফার্ম কর্তৃপক্ষ ওই নারীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে। পরে ওই মুসলিম নারীদের জন্যই অ্যাম্বার হ্যান্সেলি তার চাকরি ফিরে পান। চাকরি ফিরে পাওয়ার পর সে নিজের ভুল বুঝতে পারেন এবং মুসলিম নারীদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করেন।

মূল ঘটনা: উত্তর আমেরিকার ডাকোটা প্রদেশের ফার্গো শহরের “Fargo accounting firm”-এ চাকরি করে অ্যাম্বার হ্যান্সেলি নামে এক নারী। অ্যাম্বার হ্যান্সেলি তিন জন মুসলিম নারীকে দেখে অপমান করা শুরু করে এবং চিৎকার দিয়ে বলে, ‘আমি সব মুসলমানদের হত্যা কবর।’

এরই মধ্যে এক মুসলিম নারী অ্যাম্বার হ্যান্সেলির অপমানকর আচরণটি ভিডিও করে। ভিডিওটি পরবর্তীতে তিনি পুলিশের নিকট পাঠান এবং সামাজিক নেটওয়ার্কে প্রকাশ করেন।

ভিডিও করার সময় মুসলিম নারী অ্যাম্বার হ্যান্সেলিকে সতর্ক করে বলেন যে, ‘ভিডিওটি পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হবে। তখন হ্যান্সেলি বলে, ‘আমি পুলিশকে পরোয়া করি না।’

ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পেলে “Fargo accounting firm” কর্তৃপক্ষ হ্যান্সেলিকে চাকরি থেকে বহিষ্কার করে।

হ্যান্সেলির চাকরি চলে যাওয়ার পর মুসলিম নারীরা সিদ্ধান্ত নেয় যে, “Fargo accounting firm” কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে হ্যান্সেলিকে পুনরায় কাজে ফিরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানাবে।

পরবর্তীতে মুসলিম নারীরা “Fargo accounting firm” কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে হ্যান্সেলিকে চাকরি করার সুযোগ করে দেয়। যার ফলে হ্যান্সেলি নিজের ভুল বুঝতে পারে। সে মুসলিম মহিলাদের কাছে অনুশোচনা প্রকাশ করে এবং তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব স্থাপন করে।

এ ঘটনাটি উত্তর আমেরিকার ডাকোটা প্রদেশের ফার্গো শহরের পুলিশ প্রধান ডেভিড টড তাঁর ব্যক্তিগত ফেসবুক পেজে ছবিটি পোস্ট করে। এ ঘটনাটি প্রকাশ করা হয় (wday.com) নামক ওয়েবসাইটে।

ছবিতে দেখা যায় যে, ঘটনার শিকার মুসলিম নারী লেইলা এবং সারাহ হাসানেকে দু হাতে জড়িয়ে ধরেছে অ্যাম্বার হ্যান্সেলি।

পুলিশ অফিসার টড লিখেছেন, তারা একে অপরের সাথে মিলিত হয়েছে এবং কথা বলেছে। তিনি আরও লিখেছেন, আমাদের সমাজে অনেক দৃষ্টিকটু ঘটনা রয়েছে; যে গুলোর প্রতি দৃষ্টি দেয়া অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আর ক্ষমা এবং বিবেচনার মাধ্যমে এ সব দৃষ্টিকটু সমস্যার সমাধান করা যায়।

sentbe-top