sentbe-top

পর্তুগালের গোল্ডেন ভিসায় ‘সেকেন্ড হোম’ সুবিধা

portugalইউরোপের দেশ পর্তুগাল ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সহজ করে বিদেশি বিত্তবান আর ব্যবসায়ীদের জন্য চালু করেছে গোল্ডেন রেসিডেন্ট ভিসা/পারমিট। বর্তমানে অনেকেই সেকেন্ড হোম হিসেবে এ পদ্ধতিকে চেনেন।

বাংলাদেশসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশের বিত্তবান আর ব্যবসায়ী অনেকেই এখন এশিয়া আর ইউরোপের অনেক দেশেই তাদের সেকেন্ড হোম করছেন। ২০১২ সাল থেকে চালু হওয়া পর্তুগালের এই ভিসার জন্য লাখ ইউরো বা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় পাঁচ কোটি টাকার মতো বিনিয়োগ করতে হবে। আবাসন খাতে বিনিয়োগ করে বছরে অন্তত সাত দিন যারা পর্তুগালে থাকতে পারে তাদের জন্য এই ভিসা।

বিনিয়োগকারী ব্যক্তি নিজেসহ তার পরিবার অর্থাৎ পিতা-মাতা, স্ত্রী ও সন্তানসহ একত্রে সকলের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর এই সমপরিমাপ টাকা বিনিয়োগ করে কমপক্ষে ১০ জন লোকের কর্মসংস্থান করতে পারলে পেয়ে যাবে গোল্ডেন ভিসা বা রেসিডেন্ট পারমিট।

শুরুতে এক বছরের এবং পরবর্তীতে নবায়নের সময় প্রতি বার দুই বছর করে রেসিডেন্ট পারমিট পাওয়া যাবে। এভাবে পাঁচ বছর থাকলে পর্তুগিজ নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করা যাবে।

সৌজন্যে- কালের কণ্ঠ

sentbe-top