sentbe-top

বৈষম্য বিরোধী আইন প্রণয়নে কোরিয়া সরকারকে জাতিসংঘ দূতের তাগিদ

বর্ণবাদ বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত মুশুমা রুতিরে খুব শীঘ্রই একটি বর্ণবাদী ও বিদেশীদের প্রতি বৈষম্য বিরোধী আইন প্রণয়ন করতে কোরিয়া সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সপ্তাহকালব্যাপী কোরিয়া সফর শেষে সোমবার সিউল ত্যাগের প্রাক্কালে মুশুমা সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এ আহ্বান জানান।

mutuma_ruteere_un_special_rapporteur
জাতিসংঘের বর্ণবাদ বিষয়ক বিশেষ দূত মুশুমা রুতিরে

মুশুমা বলেন, “আমি খুব দৃঢ়ভাবেই মনে করি এ আইনটি প্রণয়নে আরও অধিক গুরুত্ব প্রদান করা উচিৎ। কেননা উপযুক্ত আইন ছাড়া এ ধরনের বৈষম্যের শিকার ব্যক্তিদের করার মতো কিছুই থাকে না।”

কোরিয়ায় প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে বর্ণবাদী বা বিদেশীদের প্রতি বৈষম্যের কোন নজির তিনি অন্তত জানতে পারেন নি- এমন মন্তব্য করে মুশুমা বলেন, “তবে বিচ্ছিন্নভাবে ব্যক্তিপর্যায়ে এ ধরনের কিছু ঘটনার কথা আমি শুনেছি। যেমন কোরিয়ার নাগরিকত্ব পাওয়া এক বিদেশী নারীকে একটি পাবলিক বাথরুম ব্যবহার করতে দিতে কর্তৃপক্ষের অস্বীকৃতি; চেহারা কোরিয়ানদের মতো না হওয়ায় একাধিক যাত্রীকে ট্যাক্সিতে বহন করতে চালকের অপারগতা; বিদেশী ক্রেতাদের প্রতি দোকানিদের অসৌজন্যমূলক আচরণ প্রভৃতি।”

এসব বিচ্ছিন্ন ঘটনা হলেও বর্ণবাদী আচরণ ও বিদেশীদের প্রতি অহেতুক ভয় (জেনোফোবিয়া) প্রশমনে সরকারের এখনই উদ্যোগী হয়ে শিক্ষা ও প্রচারণা কার্যক্রমের মাধ্যমে জনসচেতনতা সৃষ্টি করা উচিৎ বলে মুশুমা মন্তব্য করেন।

উল্লেখ্য, বিগত সাত বছরে কোরিয়া সরকার তিন দফায় বৈষম্য বিরোধী আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নিলেও প্রতিবারেই বিভিন্ন রক্ষণশীল ধর্মীয় গোষ্ঠীর বাঁধার মুখে সেগুলো বাস্তবায়নের মুখ দেখে নি।

sentbe-top