cosmetics-ad

কোনভাবেই যুদ্ধের সম্ভাবনা নেইঃ সাধারণ নাগরিকদের প্রতিক্রিয়া

অনলাইন প্রতিবেদক, ১১ এপ্রিল, ২০১৩:

কোরিয়ার পত্রিকাতে কয়েক দিন ধরে উত্তর-দক্ষিণের যুদ্ধের খবরই প্রধান খবর। যুদ্ধের সম্ভাবনা, কৌশল, বিশেষজ্ঞদের অভিমত, উত্তর কোরিয়ার যুদ্ধ প্রস্তুতিসহ যুদ্ধ নিয়েই দক্ষিণ কোরিয়ার মিডিয়া এখন ব্যস্ত। শুধু দক্ষিণ কোরিয়া নয়, আন্তর্জাতিক মিডিয়াও এই ইস্যুকে প্রধান সংবাদ করেছে গত কয়েকদিন ধরে। কিন্তু দক্ষিণ কোরিয়ার সাধারণ নাগরিকদের প্রতিক্রিয়া একেবারেই বিপরীত। তারা যুদ্ধের কোন সম্ভাবনাই দেখছেন না।

সিউলের নাগরিক হান গিল জানান উত্তর-দক্ষিণের যুদ্ধ কোনভাবেই হবেনা। সেই পরিস্থিতি এখনো হয়নি। মিডিয়াতে এই ব্যাপারে এত লেখালিখি কেন জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন উত্তর কোরিয়া কিছু প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে বলে হয়ত মিডিয়া সেটা নিয়ে লিখছে বা টিভিতে দেখাচ্ছে। এটা নিয়ে আমরা শংকিত নয়। দক্ষিণ কোরিয়ান আরেকজন নাগরিক ই হোয়া ফেসবুকে তার প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন “ উত্তর কোরিয়া এখন অনেক গরিব দেশ। দক্ষিণের কাছে তারা বিভিন্নভাবে অর্থ আদায়ের চেষ্টা করে। এখন নিউক্লিয়ার বোমার ভয় দেখিয়ে কিছু আদায়ের চেষ্টা চলছে। কিন্তু দক্ষিণ সেভাবে উত্তরকে অর্থ দিচ্ছেনা। মোটকথা উত্তর-দক্ষিণের একত্রীকরণ ছাড়া উপায় নাই”।

কোরিয়া হেরাল্ডের সম্পাদকীয়তে দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণকে শংকিত করা এবং ভয়ভীতি ছড়ানোর জন্য উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহবান জানানো হয়। সম্পাদকীয়তে বলা হয় উত্তর কোরিয়ার তরুণ এবং অনভিজ্ঞ নেতা দক্ষিণ কোরিয়াকে ব্লেক মেইল করার চেষ্টা করছে। প্রেসিডেন্ট পার্ক ইতিমধ্যে তার বক্তব্যে পরিস্কার করে বলেছেন উত্তর কোরিয়ার খারাপ আচরণের জন্য দক্ষিণ আগের মত এতো ভাল ব্যবহার করবেন না।

এদিকে বাংলা টেলিগ্রাফের কাছে অনেকে জানতে চেয়েছেন যুদ্ধের খবরগুলো আসলেই সত্য কিনা। কারণ তাদের কোরিয়ান বন্ধুদের কাছে জানতে চাইলে সবাই হেসে উড়িয়ে দেন। মিডিয়ায় যুদ্ধের সম্ভাবনা নিয়ে যতই মাতামাতি হোকনা কেন কোরিয়ান নাগরিকদের মধ্যে তার কোন প্রভাবই পড়েনি। স্বাভাবিক জীবনযাপনই করছেন তারা।