cosmetics-ad

মঞ্চেই মৃত্যু হল প্রধান শিক্ষকের

death

নড়াইলের লোহাগড়ার ইতনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান চলাকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মৃত্যুবরণ করেছেন। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

জানা গেছে, উপজেলার ইতনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান উপলক্ষে শনিবার বিদ্যালয়ের হল রুমে এক অনাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সরদার নাজমুল হাসান টগরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ফকুকুল হক খান, শিক্ষক আশীষ কুমার গোলদার, নারায়ন চন্দ্র বিশ্বাস, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্য বদির উদ্দিন মোল্লা, কাজি রবিউল ইসলাম, নাসরিন বেগম প্রমুখ।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যেও প্রধান অতিথি নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেওয়ার সময় পাশে উপবিষ্ট প্রধান শিক্ষক মো. ফকুকুল হক খান হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। এসময় প্রধান অতিথি তড়িঘড়ি করে বক্তব্য শেষ করে অসুস্থ প্রধান শিক্ষককে নিজের ব্যবহৃত গাড়িতে করে দ্রুত লোহাগড়া হাসপাতালে নিয়ে আসেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক আবুল হাসনাত তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রধান শিক্ষকের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছাড়া নেমে এসেছে। প্রধান শিক্ষকের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি সরদার নাজমুল হাসান টগর, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বিশ্বনাথ গাঙ্গুলীসহ সকল শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে ইতনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে মো. ফকুকুল হক খান যোগদান করে সুনামের সঙ্গে শিক্ষকতা করে আসছিলেন। তার বাড়ি কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার পিপোরিয়া গ্রামে। তার বাবার নাম মৃত আশফাক খান। মৃতকালে মরহুমের বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে সন্তানসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

শনিবার মরহুমের নামাজের জানাযা বাদ আসর ইতনা ও লক্ষ্মীপাশায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। তাকে লক্ষ্মীপাশা কেন্দ্রীয় কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।