cosmetics-ad

এবার গরুর মাংস নিষিদ্ধ হলো কাশ্মীরে

meet-banned

ভারতের ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই দেশটিতে গরুর মাংস নিষিদ্ধের ব্যপারে তৎপর হয়ে উঠে বিজেপি। তাই ক্ষমতায় আরোহনের কিছুদিন পরই ভারতের বেশ কিছু রাজ্যে খাবারের জন্য গরু জবাই, হোটেলগুলোতে গরুর মাংস পরিবেশন এবং সর্বোপরি গরুর মাংসের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার গরুর মাংসের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলো মুসলিম অধ্যুষিত কাশ্মীরেও।

কাশ্মীরের ক্ষেত্রে ১৯৮০ সালেও গরুর মাংস নিষিদ্ধের ব্যপারে এমন একটি আইন কার্যকরের চেষ্টা চালিয়ে ছিল ভারত সরকার। কিন্তু মুসলামনদের ব্যাপক আন্দোলনের মুখে আইনটি আর কার্যকর করা সম্ভব হয়ে ওঠে নি। ফলে এক প্রকার বাধ্য হয়েই পিছু হটেছিল সরকার। তবে এবার আদালত থেকে নিষেধাজ্ঞা পাওয়া মাত্রই আইনটি কার্যকর করতে কঠোর অবস্থানে নেমেছে বিজেপি সরকার। এমনকি আইনটি কার্যকর করতে রাজ্যের পুলিশ বাহিনীকেও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এর আগে জনস্বার্থের জন্য গরুর মাংস নিষিদ্ধের ব্যাপারে আদালতে একটি মামলা করে পরিমোক্ষ শেঠ নামের ভারতীয় জনতা পার্টির এক নেতা। তার করা মামলার উপরই ভারতীয় আদালত আগের রায়টি কার্যকরের উপর নির্দেশ প্রদান করে।

তবে মুসিলিম অধ্যুষিত কাশ্মীরে যে কোন মূল্যে এ আইন কার্যকর না হতে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে রাজ্যেটির মুসলিম সংঘঠনগুলো। এ ব্যাপারে তারা কঠোর আন্দোলনেরও হুমকি দিয়েছে। এমনকি মুসলমানদের একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সংঘঠন ঘোষণা দিয়েছে, তারা আগামী কোরবানীর ঈদে রাজধানী শ্রীনগরের লাল চকে গরু কোরবানী করে ভারত সরকারের এমন নিষেধাজ্ঞার প্রতি প্রতিবাদ জানাবে।

উল্লেখ্য, ভারত সরকার নিজ দেশে গরুর মাংসের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও বিশ্বে টিনজাত গরুর মাংস রপ্তানির ক্ষেত্রে এখনো তৃতীয় স্থানে রয়েছে।