cosmetics-ad

হাঙ্গেরির সীমান্তে আটকা শত শত অভিবাসী

hungary_border

আশ্রয়প্রার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে সার্বিয়ার সঙ্গে সীমান্তে উঁচু কাঁটাতারের বেড়াসহ ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করেছে হাঙ্গেরি। ফলে দু’দেশের মধ্যকার সীমান্ত বন্ধ হয়ে গেছে। এতে হাঙ্গেরিতে ঢোকার চেষ্টা করতে গিয়ে সীমান্তে শত শত অভিবাসী আটকে পড়েছে।

বুধবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হাঙ্গেরি কর্তৃপক্ষ অভিবাসীদের গ্রেপ্তারের হুমকি দেওয়ায় সার্বিয়া ও দেশটির সীমান্তে বিক্ষোভ করেছেন অনেক আশ্রয়প্রার্থী। অনেকে আবার অনশনও করেছেন।

মরিয়া আশ্রয় প্রার্থীদের চাপ সামলাতে হাঙ্গেরির সীমান্তবর্তী এলাকায় জরুরী অবস্থা বলবৎ রয়েছে। তবে আশ্রয়প্রার্থীরা কাঁটাতারের বেড়া সরিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই এলাকা দিয়ে অনেক আশ্রয়প্রার্থী কাঁটাতারের বেড়া পার হয়ে ঢোকার চেষ্টা করেছেন। হাঙ্গেরিতে আশ্রয়প্রার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে জরুরী অবস্থা জারি করার মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে একটি নতুন আইনও পাশ হয়েছে। তার পরপরই সীমান্তে কড়া নজর রাখা শুরু করেছে দেশটি।

কাঁটাতারের ওপারে আটকে পড়েছে শত শত অভিবাসী। এদের একটা বড় অংশ মূলত যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে আসা শরণার্থী। ওই দেশ থেকে আসা অনেক শরনার্থীই বলছেন, কাছে আর কোনো অর্থ না থাকায় তাদের পক্ষে এখন আর ফিরে যাওয়াও সম্ভব নয়। অনেকে বলছেন, তারা হাঙ্গেরির কাছে কিছুই চান না। তারা শুধু দেশটির রাস্তা ব্যাবহার করে অন্য কোথাও চলে যেতে চান।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, সীমান্তে বিক্ষোভ আর প্রতিবেশী দেশগুলোর সমালোচনা সত্ত্বেও কাঁটাতারের বেড়া আরও দীর্ঘ করার ঘোষণা দিয়েছে হাঙ্গেরি। সোমবার মধ্যরাতে নতুন আইনটি কার্যকর হওয়ার পর সার্বিয়ার সীমান্ত অঞ্চলে যে রেললাইন ক্রসিং পয়েন্ট দিয়ে হাজার হাজার মানুষ হাঙ্গেরিতে ঢুকছিল সেটিও বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ।