sentbe-top

ফেসবুকের কল্যাণে ভিক্ষা বন্ধ হলো মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর

facebook-helpফেসবুকে একটি স্ট্যাটাসের সূত্র ধরেই অনেকে তার প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার এক লন্ডন প্রবাসীর সহযোগিতায় তার বাড়িতে দুটি গরু নিয়ে হাজির হন কয়েকজন সংবাদকর্মী। সেই গরু পেয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন তিনি। স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে শুধু গরু আর সহযোগিতা নয়, স্বামীর শেষ চাওয়া মুক্তিযোদ্ধারও স্বীকৃতিও পেয়েছেন। এখন তিনি মুক্তিযোদ্ধার ভাতাও পাচ্ছেন প্র্রতিমাসে। অনেক কষ্ট ভোগ করার পর সুখ পাওয়া এই মানুষটি হলেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ভেলাজান গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা পাকু রামের স্ত্রী নিঢালী বেওয়া।

ফেসবুকের স্ট্যাটাসের সূত্র ধরেই নিঢালীর জীবন কাহিনী নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয় দেশের প্রথম সারির কিছু জাতীয় দৈনিকে। নিউজটি প্রকাশ হয় অনলাইন মিডিয়াতেও।

গতকাল সোমবার বিকেলে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে ওই সহযোগিতার অর্থ দিয়ে দুটি গরু দেয়া হয়েছে। গরু দুটি তুলে দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন সাইফুর রহমান বাদশা, ছবি লাল রায়, তানভীর হাসান তানু, রবিউল এহসান রিপন, শামসুজ্জুহা।

নিঢালী বেওয়ার স্বামী পাকুরাম ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু তখন তার ভাগ্যে মেলেনি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি। তারই চোখের সামনে স্থানীয় এক রাজাকার মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম লিখিয়ে গলায় ঝুলিয়েছে গৌরবের মালা। বুকটা ভেঙে যায় পাকুরামের। এত ছোট বুকে পাহাড়-সমান কষ্ট হয়তো সইতে পারেননি। তাই পাগল হয়ে যান। এক বুক কষ্ট নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

নিঢালী বলেন, পত্রিকায় খবর প্রকাশের পর অবশেষে মুক্তিযোদ্ধার ভাতা হয়েছে। তাই এখন ভিক্ষা করতে হচ্ছে না। কিন্তু থাকার ঘরটি কখন যে ভেঙে পড়ে সেজন্য দুশ্চিন্তায় আছি। এখন এই দুটি গরু বড় করে দুধ বিক্রি করে বাকি জীবনটা চালিয়ে নেয়ার আশা।(বাংলামেইল২৪)

sentbe-top