cosmetics-ad

সাত বছরে দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানিতে সর্বোচ্চ পতন

সদ্যসমাপ্ত জানুয়ারিতে দক্ষিণ কোরিয়ার রফতানিতে রেকর্ড পতন দেখা গেছে। গতকাল প্রকাশিত সরকারি প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত মাসে দেশটির মোট রফতানি ছিল ৩৬ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলার। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় রফতানি কমেছে ১৮ দশমিক ৫ শতাংশ, যা আগস্ট ২০০৯ সালের পর পতনের সর্বোচ্চ হার। খবর এএফপি।

economy-2016

বেশ কয়েক বছর ধরে রফতানিই দেশটির অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তিতে পরিণত হয়েছে। তবে ১৩ মাস ধরে দেশটির রফতানি খাতে দুর্দিন চলছে। প্রতিবেদনে এর পেছনে কয়েকটি কারণ উল্লেখ করা হয়েছে। বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতিগুলোর, বিশেষ করে চীনের অর্থনৈতিক শ্লথগতিকে এর অন্যতম কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক সহযোগী চীন। দেশটির মোট রফতানির প্রায় চতুর্থাংশের সঙ্গেই চীনের নাম জড়িয়ে আছে। এছাড়া সংকুচিত রফতানির পেছনে বিশ্ববাজারে তেলের দরপতনেরও প্রভাব রয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। কারণ পেট্রোলিয়ামই দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধান রফতানি পণ্য।

২০১৫ সালে এশিয়ার চতুর্থ বৃহত্তম অর্থনীতিতে রফতানি কমেছে প্রতি মাসেই। আর সারা বছরে এ হার ছিল ৮ শতাংশ, যা আগের তিন বছরের মধ্যে প্রথম বার্ষিক পতন। এ কারণে ২০১২ সালের পর গত বছরই দেশটির অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার সবচেয়ে কম ছিল— মাত্র ২ দশমিক ৬ শতাংশ। বণিকবার্তা।